নয়াদিল্লি: নির্দিষ্ট পরিমানের বেশি মালপত্রের জন্য এবার দিতে হবে অতিরিক্ত কর৷ এমনই নির্দেশ দিলেন উড়ান সংস্থা ইন্ডিগো৷ জাতীয় ক্ষেত্রে বহাল করা হচ্ছে চার্জটি৷ ১৫ কেজির বেশি মালপত্রের জন্য চার্জ দিতে হবে ৩৩ শতাংশ পর্যন্ত৷ জাতীয় ক্ষেত্রে টিকিট প্রি-বুকিংয়ের সময় যাত্রীদের দিতে হবে ৫,১০,১৫ এবং ৩০ কেজির ( ১৫ কেজির বেশি হলে) জন্য ১৯০০, ৩৮০০, ৫৭০০, ১১৪০০ টাকা৷ গত কাল থেকে লাগু হয়েছে নতুন নিয়মটি৷ প্রি-বুকিং না করে যাত্রার সময় অতিরিক্ত ওজনের জন্য দিতে হবে প্রতি কেজিতে ৪০০ টাকা৷

গত আগস্টে এলসিসি প্রি-বুকিং চার্জ ধার্য করেছিল ৫,১০, ১৫ এবং ৩০ কেজির জন্য ( ১৫ কেজির বেশি হলে) যথাক্রমে ১৪২৫, ২৮৫০, ৪২৭৫, ৮৫৫০ টাকা৷ প্রি-বুকিং ছাড়া অতিরিক্ত প্রতি কেজিতে দিতে হত ৩০০ টাকা৷ এখন চার্জগুলি বেড়ে পৌঁছেছে ৩৩ শতাংশে৷ এতদিন জাতীয় ক্ষেত্রে সংস্থা অতিরিক্ত ৫ কেজির জন্য চার্জ করত ৫০০ টাকা৷ ইন্ডিগোর ব্যাগেজ চার্জের সিদ্ধান্তকে অন্যান্য প্রতিদ্বন্ধী সংস্থাগুলিও অনুসরণ করছে৷ শুধুমাত্র এয়ার-ইন্ডিয়ার যাত্রীরাই বিনা চার্জে ২৫ কেজি চেক-ইনের সুবিধাটি পান৷

জেট-ওয়ারওয়েস সিইও বিনয় দুবে চলতি বছরে জানুয়ারি থেকে মার্চ সংস্থার ১,০৪০ কোটির আর্থিক ক্ষতির কথা ঘোষণা করেন৷ তিনি বলেন, অর্থনৈতিক দিক থেকে সংস্থা ভাল ফল করতে পারেনি৷ যার মূল কারণ, জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি হলেও বাড়েনি টিকিটের মূল্য৷ ফলে, সংস্থা পড়েছে আর্থিক ক্ষতির মুখে৷ প্রায় একই চিত্র দেখা গিয়েছে অন্যান্য বিমান সংস্থার ক্ষেত্রেও৷ অতীতের ইতিহাস ঘাঁটলে উঠে আসে কিংফিশরের মতো তাবড় বিমান সংস্থাটির নাম৷ যেটির ভয়ঙ্কর লোকসন বিলুপ্ত করেছে সংস্থাটির অস্তিত্বকে৷ সেই পরিণতিকে সামনে রেখেই টিকিটের মূল্যবৃদ্ধির উপর জোর দিয়েছে একাধিক বিমান সংস্থা৷