নয়াদিল্লি: গত চার মাস ধরে বিদ্যুতের চাহিদা কমছে ৷ এই নভেম্বরে গত বছরের তুলনায় বিদ্যুতের চাহিদা কমেছে ৪.৩ শতাংশ৷ এমনটাই জানাচ্ছে সরকারি তথ্য৷ যা আসলে শিল্পক্ষেত্র এবং অর্থনৈতিক মন্দারই প্রতিফলন৷

গত অক্টোবরে দেশের বিদ্যুতের চাহিদা গত বছরের সাপেক্ষে ১৩.২ শতাংশ কমে গিয়েছিল যা ১২ বছরের বেশি সময়ে জন্য সবেচেয়ে মাসিক পতন দেখা গিয়েছিল কারণ এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতিতে মন্দা দিকে ধাবিত হয়েছে৷

বিদ্যুতমন্ত্রকের এক আধিকারিকের ধারণা এভাবে বিদ্যুতের চাহিদা কমার পিছনে কারণ হল শীত আগে এসে যাওয়ায় এবং প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ায় ৷ এরফলে এয়ার কন্ডিশন চালানোর প্রয়োজন কমে গিয়েছে৷

যেখানে বিদ্যুতের চাহিদা শিল্পের জন্য সারা বছরের বিদ্যুতের চাহিদার দুয়ের পঞ্চাংশ৷ সরকারি তথ্য অনুসারে বাসস্থানের জন্য এক চতুর্থাংশ এবং বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে লাগে ৮.৫ শতাংশ৷ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে যে বিদ্যুৎ লাগে তার অনেকটাই লাগে এয়ার কন্ডিশনা সেটা অবশ্য বেশ কিছু শহরের মধ্যে সীমাবদ্ধ ৷

বিদ্যুতের চাহিদা কমে গিয়ে নভেম্বরে ৯০.৬০ বিলিয়ন ইউনিট হয়েছে যেখানে গত নভেম্বরে ছিল ৯৮.৮৪ বিলিয়ন ইউনিট ৷
ভারতের সবচেয়ে শিল্পে সম্বৃদ্ধ এবং বিদ্যুতের চাহিদা থাকা মহারাষ্ট্রে চাহিদা কমেছে ৮.১ শতাংশ৷ অন্যদিকে মধ্যপ্রদেশের মতো বড় রাজ্যে চাহিদা কমেছে ১৩.৯ শতাংশ ৷

অর্থনীতিবিদদের মতে, এই বিদ্যুতের চাহিদা কমা শিল্পোৎপাদন কমার একটি গুরুত্বপূর্ণ ইঙ্গিত৷ যা মন্দার আভাস দিচ্ছে ৷