ম্যাঞ্চেস্টার: মঙ্গলবার ম্যাঞ্চেস্টারে বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে নামছে ভারত৷ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বিরাটদের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড৷ শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে এক নম্বরে লিগ শেষ করেছে কোহলি অ্যান্ড কোং৷ এক নজরে দেখে নেওয়া যাক বিশ্বকাপে বিরাটবাহিনীর সেমিফাইনালে ওঠার রাস্তা…৷

২ জুন, বার্মিংহ্যামে বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিফাইনালের ছাড়পত্র জোগাড় করে নিয়েছে ভারত৷ কিন্তু তার আগেই অনেকটা পথ পেরিয়ে গিয়েছিল বিরাট অ্যান্ড কোং৷ লিগে একটি মাত্র ম্যাচ হেরেছে ‘মেন ইন ব্লু’৷ বৃষ্টির জন্য পরিত্যক্ত হয়েছে কিউয়িদের বিরুদ্ধে বিরাটদের লড়াই৷ প্রোটিয়া ‘বধ’ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করে ভারত৷ আর লঙ্কা ‘জয়’ করে শীর্ষ থেকে লিগ শেষ করে কোহলি অ্যান্ড কোং৷

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৬ উইকেটে জয়:

প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করে ভারত৷ নেতা বিরাটের এটাই প্রথম বিশ্বকাপ ম্যাচ৷ সাউদাম্পটনের হ্যাম্পশায়ার বোলে স্লো পিচে ফ্যাফ ডু’প্লেসিদের ২২৭ রানে বেঁধে রাখে ভারতীয় স্পিনাররা৷ রান তাড়া করে রোহিত শর্মার শতরানে ৬ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় ‘মেন ইন ব্লু’৷ ১২২ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন ‘হিটম্যান’৷

৩৬ রানে ‘অজি বধ’:

লিগের দ্বিতীয় ম্যাচেই পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে স্বস্তি পায় বিরাটবাহিনী৷ কেনিংটন ওভালের ব্যাটিং সহায়ক পিচে শিখর ধাওয়ানের দুরন্ত সেঞ্চুরি ও বিরাট কোহলি ও রোহিতের হাফ-সেঞ্চুরির সাহায্যে প্রথম ব্যাটিং করে ৩৫২ রান তোলে ভারত৷ জবাবে ৩১৫ রান তুলে থেমে যায় অজি ইনিংস৷ তবে এই ম্যাচে বাঁ-হাতের আঙুলে চোট পেয়ে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যান ধাওয়ান৷

বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত ভারত-নিউজিল্যান্ড লড়াই:

মঙ্গলবার কিউয়িদের বিরুদ্ধে সেমিফাইনাল খেলবে টিম ইন্ডিয়া৷ কিন্তু লিগে বৃষ্টির জন্য কিউয়িদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সুযোগ মেলেনি বিরাটদের৷ কারণ বৃষ্টির জন্য ট্রেন্ট ব্রিজে টস করায় সম্ভব হয়নি৷ ফলে দু’ দলই এক পয়েন্ট করে পেয়ে যায়৷ তবে বিশ্বকাপ শুরুর আগে ওয়ার্ম-আপ ম্যাচে উইলিয়ামসনদের কাছে হেরেছিল কোহলি অ্যান্ড কোং৷

বিশ্বকাপে ‘পাক বধ’ অব্যাহত টিম ইন্ডিয়া’র:

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের কাছে কোনও ম্যাচ না-হারার রেকর্ড অক্ষুণ রাখে বিরাটবাহিনী৷ ম্যাঞ্চেস্টারে ধাওয়ান খেলতে না-পারায় রোহিতের সঙ্গে লোকেশ রাহুল ভারতের ইনিংস শুরু করেন৷ ওপেনিং জুটিতে সেঞ্চুরি পার্টনারশিপে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে পাক বোলারদের বিরুদ্ধে জাঁকিয়ে বসে ভারত৷ রোহিতের ১৪০ রানে ইনিংসে ভর করে ৩৩৬ রান তোলে টিম ইন্ডিয়া৷ বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচ ডাকওয়াক-লুইস নিয়মে ৮৯ রানে জিতে নেয় বিরাট অ্যান্ড কোং৷

আফগানদের বিরুদ্ধে কষ্টার্জিত জয় বিরাটদের:

অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তানের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলকে হেলায় হারালেও আফগানদের বিরুদ্ধে কষ্ট করে ম্যাচ জেতে ভারত৷ স্পিন সহায়ক পিচে ভারতকে ২২৪ রানে বেঁধে রাখেন আফগান স্পিনাররা৷ রান তাড়া করতে নেমে দুরন্ত লড়াই করেন আফগান ব্যাটসম্যানরা৷ কিন্তু শেষ দিকে জসপ্রীত বুমরাহ ও মহম্মদ শামির বোলিংয়ে লড়াই ফেরে বিরাটরা৷ তবে শেষ ওভারে শামির হ্যাটট্রিকে শেষ হাসি হাসে বিরাটবাহিনী৷ ১১ রানে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত৷

ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে ১২৫ রানে জয় টিম ইন্ডিয়া’র:

বিশ্বকাপে অপরাজিত বিরাটদের সামনে ধোপে টেকেনি গেইল-হোল্ডারদের লড়াই৷ প্রথম ব্যাটিং করে ভারত ২৬৮ রান তুললেও ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানদের ১৪৩ রানে শেষ করে দেন ভারতীয় বোলাররা৷ আফগান ম্যাচের মতোই ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধেও দুরন্ত ছিলেন শামি৷ মাত্র ১৬ রান খরচ করে চারটি উইকেট তুলেন নেন ভারতীয় এই পেসার৷

ইংল্যান্ডের কাছে বিরাটবাহিনীর হার:

বিরাটের নেতৃত্বে বিশ্বকাপে হারের তিক্ত স্বাদ পায় ভারতীয় দল৷ জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টোরে জোড়া সেঞ্চুরিতে ৩৩৮ রান তোলে ভারত৷ জবাবে রোহিতের সেঞ্চুরি ও বিরাটের হাফ-সেঞ্চুরি ভারতকে ম্যাচে ফেরালেও মিডল-অর্ডারে ব্যর্থতায় ৩১ রানে ম্যাচ হারে টিম কোহলি৷ ২০১৯ বিশ্বকাপ প্রথম ম্যাচ হারে ভারত৷

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ২৮ রানে জয়:

ইংল্যান্ডের কাছে হারায় সেমিফাইনালে যাওয়ার জন্য বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জেতা অত্যন্ত জরুরি ছিল বিরাটদের৷ রোহিত-রাহুলের রেকর্ড ১৮০ রানের ওপেনিং পার্টনারশিপে ৩১৫ রান তোলে ভারত৷ বাংলাদেশ রান তাড়া করে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করলেও বুমরাহ ও হার্দিক পান্ডিয়ার বোলিংয়ে ম্যাচ জিতে নেয় টিম ইন্ডিয়া৷ বুমরাহ ৪টি ও পান্ডিয়া ৩টি উইকেট নেন৷

৭ উইকেটে বিরাটদের ‘লঙ্কা জয়’:

বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করে নেওয়া বিরাটদের শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে লড়াই ছিল এক নম্বরে লিগ শেষ করা৷ আর সেটাই করে দেখায় ‘মেন ইন ব্লু’৷ ২৬৪ রানে লঙ্কাবাহিনীকে বেঁধে রাখার পর রোহিত ও রাহুলের জোড়া সেঞ্চুরিতে হাসতে হাসতে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত৷ সেই সঙ্গে এক বিশ্বকাপে পাঁচটি সেঞ্চুরি করে বিশ্বরেকর্ড গড়েন রোহিত৷ তবে অস্ট্রেলিয়া লিগের শেষ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হারায় শীর্ষস্থানে লিগ শেষ করে কোহলি অ্যান্ড কোং৷ এর ফলে সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পায় বিরাটবাহিনী৷