ইসলামাবাদ: বন্দুকের নলের সামনে দাঁড়িয়ে অনিচ্ছায় বিয়ে করতে হয়েছিল এক পাকিস্তানি ব্যক্তিকে। এমনই অভিযোগ জানালেন ভারতের উজমা। রোজ রোজ স্বামীর অত্যাচার থেকে বাঁচতে তাই এবার দেশে ফিরতে চান উজমা।

স্বামী তাহির আলি তাকে ভয় দেখায় এবং অত্যাচার করে। ইসলামাবাদ কোর্টে এই অভিযোগ জানিয়েছেন উজমা। কিন্তু তাহির আলি সময় মতো কোর্টে হাজিরা দিচ্ছে না বলে জানা গিয়েছে। শুধু জোর করে বিয়ে করাই নয়। পাকিস্তানে আসার পর তাঁর অভিবাসন সম্পর্কিত কাগজপত্রও ছিনিয়ে নিয়েছে তাহির আলি। তাই দেশে ফেরা নিয়েও সংশয় তৈরি হয়েছে।

দেশে ফেরার ব্যবস্থা যতদিন না হচ্ছে, ততদিন ভারতীয় হাই কমিশনের এলাকা থেকে একটুও নড়বেন না বলে ঠিক করেছেন উজমা। সোমবার সকালে তাহির এখানেই দেখা করতে আসে উজমার সঙ্গে।

নয়াদিল্লির পাকিস্তানি হাই কমিশন জানিয়েছে যে, উজমা যেই ভিসা নিয়ে পাকিস্তানে গিয়েছিল সেটি ভিসিট ক্যাটাগরির ভিসা। এছাড়া পাকিস্তান যাওয়ার সময় উজমা তাহিরের সঙ্গে বিয়ে নিয়েও মুখ খোলেনি। বরং আগ্রহ সহকারে জানিয়েছিলেন যে পাকিস্তানে আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন।

গত সপ্তাহে দেশে ফিরে যাওয়ার আর্জি ভারতীয় হাই কমিশনের কাছে প্রকাশ করেন ২০ বছরের উজমা। পাকিস্তান ফরেন অফিসের মুখপাত্র নাফিস জাকারিয়া এই প্রসঙ্গে জানান যে, বিয়ের পর উজমা গিয়ে জানতে পারেন তাহির আগে থেকেই বিবাহিত। আর তাঁর ৪টি সন্তান আছে।