ব্লুমফন্টেন: ৯০ রানে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দাপুটে জয় দিয়ে শুরু। এরপর রবিবার আনকোরা প্রতিপক্ষ জাপানকে হেলায় উড়িয়ে অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেতাব ধরে রাখার অভিযান প্রত্যাশামতোই করেছে প্রিয়ম গর্গের নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দল। ব্লুমফন্টেনে এদিন জাপানকে ৪১ রানে গুটিয়ে দিয়ে ১০ উইকেটে জয় তুলে নেয় ‘মেন ইন ব্লু’। কিন্তু ম্যাচ জয়ের থেকেও নেটদুনিয়ায় এখন জোর চর্চা ভারতীয় দলের ‘স্পিরিট অফ ক্রিকেট’ নিয়ে।

বিশ্বকাপের অভিষেক মঞ্চে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ভারতের কাছে জাপান যে এঁটে উঠতে পারবে না, একথা সকলেরই জানা ছিল। প্রত্যাশামতোই বাইশ গজে প্রিয়ম গর্গ নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দলের কাছে এদিন দশ উইকেটে হার স্বীকার করতে হয় জাপানকে। জাপানের দেওয়া ৪২ রানের স্বল্প টার্গেট তুলতে মাত্র ৪.৫ ওভার খরচ করে ভারতীয় দল। এই ম্যাচ জয়ের সঙ্গে-সঙ্গেই শেষ আট নিশ্চিত করে ফেলে গতবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

উলটোদিকে অভিষেক বিশ্বকাপের মঞ্চে বড় ব্যবধানে হারের ধাক্কায় মুষড়ে পড়ে জাপান ক্রিকেট দল। ঠিক এমন সময় বাইশ গজের প্রতিদ্বন্দ্বিতা দূরে সরিয়ে রেখে ফটোসেশনে প্রতিপক্ষকে ডেকে নেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। যা দৃষ্টান্ত হয়ে রয়ে যায় ক্রিকেটবিশ্বের কাছে। এরপর জাপানি ক্রিকেটারদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ফটোসেশন সারে ‘মেন ইন ব্লু’। ভারতীয় সংস্কৃতির ধারক এবং বাহক ভারতীয় ক্রিকেটারদের এহেন আচরণকে কুর্নিশ জানান নেটিজেনরা।

এই ঘটনা যে বহুদিন ক্রিকেট অনুরাগীদের হৃদয়ে গেঁথে থাকবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। টুইটারে ঘটনাটিকে একটি ‘ল্যান্ডমার্ক’ হিসেবে বর্ণনা করেছে জাপান ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার কার্তিক ত্যাগির পেস ও রবি বি়ষ্ণুর লেগ-স্পিনের বিরুদ্ধে পিচে দাঁড়িয়ে থাকার সাহস দেখাতে পারেননি জাপানি ব্যাটসম্যানরা। ২২.৫ ওভারে গুটিয়ে যায় জাপানের ইনিংস। ৮ ওভার হাত ঘুরিয়ে তিনটি মেডেন-সহ মাত্র ৫ রান খরচ করে চারটি উইকেট তুলে নেন বিষ্ণু। ত্যাগি তিনটি উইকেট নেন।

রান তাড়া করতে নেমে মাত্র ৪.৫ ওভারে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত। দুই ওপোর যশস্বী জসওয়াল ২৯ এবং কুমার কুশরাগরা ১৩ রানে অপরাজিত থাকেন৷ পাঁচ রান দিয়ে চারটি উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা বিষ্ণু।