নয়াদিল্লি: একদিকে যখন করোনা ত্রাসে ভুগছে গোটা বিশ্ব, তার মধ্যেই কাবুলের গুরুদোয়ারায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে জঙ্গিরা। সেই ভয়াবহ বিস্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছেন ২৫ জন শিখ ধর্মাবলম্বী।

এই ঘটনার পরের দিনই সামনে এল এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গিয়েছে কাবুলে আত্মঘাতী জঙ্গিদের মধ্যে ছিল এক ভারতীয়। এই হামলায় যুক্তদের নাম প্রকাশ করেছে আই এস। আর তার মধ্যে আবু খালিদ আল হিন্দি বলে যে জঙ্গির নাম উল্লেখ করা হয়েছে, সে ভারতীয় বলে জানা গিয়েছে।

ইতিমধ্যেই ৫৬ অ্যাসল্ট রাইফেল হাতে ওই জঙ্গির ছবি প্রকাশ পেয়েছে। আইএস এর ম্যাগাজিন আল নাবা প্রকাশ পেয়েছে ওই ছবি।

কেরল পুলিশের গোয়েন্দাদের দাবি, ওই ছবি আসলে মহাম্মদ মহসিন নামে এক যুবকের। গতবছর আফগানিস্তানের একজন স্ট্রাইকে ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছিল বলে খবর এসেছিল। পুলিশের দাবি এই সেই যুবক।

কেরলের থিক্কারপুর এলাকার বাসিন্দা ওই যুবক ইঞ্জিনিয়ারিং এর ছাত্র ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। তবে এই প্রথম নয় এর আগেও আইএসের আত্মঘাতী জঙ্গি বলে দেখা গিয়েছিল আরও এক ভারতীয়কে। ২০১৫ তে রাক্কায় এক আত্মঘাতী হামলায় মৃত্যু হয়েছিল আবু ইউসুফ আল হিন্দি নামে এক আই এস জঙ্গির। যার নাম আসলে শফি ওমর। সেও দক্ষিণ ভারতের বাসিন্দা ছিল বলে জানা যায়। প্রথম ভারতীয় হিসেবে ওই জঙ্গিকে আমেরিকা গ্লোবাল টেরোরিস্ট তকমা দেয়।

গত ২৫ মার্চ কাবুলের গুরুদোয়ারায় ভয়াবহ হামলা চালায় জঙ্গিরা। আত্মঘাতী বিস্ফোরণে মৃত্যু হয় ২৫ জনের। আফগানিস্তানের শোর বাজার এলাকার একটি গুরুদোয়ারায় এই হামলা চালানো হয়। এই ঘটনার পরই তালিবান বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছিল যে এর পিছনে তাদের কোন হাত নেই। তারপরই আইএস জঙ্গিদের সন্দেহ করা হচ্ছিল।

যে এলাকায় এই আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটে সেখানে এবং হিন্দু জনসংখ্যা অনেক বেশি।