নয়াদিল্লিঃ ভারতে রেলের উন্নতির ক্ষেত্রে বড়সড় পদক্ষেপ নিল ভারতীয় রেলমন্ত্রক। পাওয়ার কারের বদলে ৪ লক্ষ আসন বাড়ানো হবে ভারতীয় রেলের তরফে। চলতি বছরের অক্টোবর থেকে ট্রেনে আরও ৪ লক্ষ আসন সংখ্যা বাড়াতে চলেছে ভারতীয় রেল। বুধবার একথা ঘোষণা করা হয়েছে ভারতীয় রেল মন্ত্রকের আধিকারিকদের তরফে।

এই বিষয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত একজন সিনিয়র রেল মন্ত্রকের আধিকারিক আইএএনএসকে জানান, বর্তমানে প্রত্যেকটি ট্রেনের সঙ্গে একটি বা দুটি পাওয়ার কার যুক্ত থাকে। যেগুলি চালানো হয় ডিজেল চালিত জেনারেটর দিয়ে। এই ভাবেই ট্রেনে লাগানো এয়ার কন্ডিশন ইউনিট, ফ্যান, আলো এবং ট্রেনের কোচগুলি পরিচালিত হয়। এই পাওয়ার কারগুলিকে এন্ড অন জেনারেশন (EOG) বলা হয়। সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, অক্টোবর থেকে এন্ড অন জেনারেশন এর পরিবর্তে হেড অন জেনারেশন (HOG) পদ্ধতি চালু করা হবে।

যা দিয়ে গোটা বিশ্বেই ট্রেনের এসি ইউনিট, ফ্যান, লাইট এবং ট্রেনের কোচগুলি পরিচালিত হয়। রেল মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ২০১৯ সালের অক্টোবরে ভারতীয় রেলের ৫০০০টি ট্রেনের কোচ এই নতুন পদ্ধতিতে চালানো হবে। ফলে কমবে খরচ ভার। ফলে কোচ সংখ্যা বাড়ানো সম্ভব করা হবে। সেই সঞ্চয় থেকেই ট্রেনের আসন বা বার্থ সংখ্যা বাড়ানো হবে। এই নতুন প্রযুক্তি অবলম্বনে প্রতি বছর ৬,০০০ টাকা সঞ্চয় করবে ভারতীয় রেল।

উল্লেখ্য, প্রত্যেক দিন ১২ লক্ষ যাত্রী পরিষেবা গ্রহন করে থাকে ভারতীয় রেলের তরফে। হিসেব বলছে নন এসি কোচগুলিতে প্রতি ঘণ্টায় ৪০ লিটার করে ডিজেল খরচ হয়। এসি কোচে খরচ হয় ৬৫ থেকে ৭০ লিটার ডিজেল। এই নতুন ব্যবস্থা সম্পূর্ণ পরিবেশ বান্ধব। শব্দদূষণও কম হবে এই পদ্ধতি অবলম্বনে। প্রত্যেক বছর প্রত্যেক ট্রেন পিছু ৭০০ এমটি কার্বন-ডাই-অক্সাইড কম উৎপন্ন হবে। ফলে কমবে বায়ু দূষণও।