লন্ডন : আয়ার্ল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রিত্বের দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন বছর আটত্রিশের লিও ভরাদকর।  কিন্তু আয়ার্ল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী কি বিশ্বের বাজারে নতুন কোনও জোয়ার আনবেন? নাকি ভারতের কোন গোপন লাভ হতে চলেছে আটত্রিশের ওই ব্যক্তির জন্য? না এসব কিছুই নয়। আসলে তিনি ভারতীয় বংশোদ্ভূত, আবার স্বঘোষিত সমকামী। পাশাপাশি তিনি আবার পেশায় চিকিত্‍সক।

আজকের মাল্টিটাস্কিং দুনিয়া যে লিও ভরাদকররের মতো ব্যক্তিকেই আইডল করবে সেটাই স্বাভাবিক। আর সঙ্গে ভারতের যোগ আরও কাছে এনে দিয়েছে আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হতে চলা ভরাদকরকে।

লিওর জন্ম ডাবলিনে। তাঁর বাবা ভারতীয়, জন্ম মুম্বইয়ে, মা আইরিশ। বর্তমানে জনকল্যাণ দফতরের মন্ত্রী লিও হতে পারেন আয়ার্ল্যান্ডের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী। দেশের প্রথম সমপ্রকামী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার নজিরও সম্ভবত গড়তে চলেছেন তিনি। তাঁর নেতৃত্বে ইতিমধ্যেই আস্থা রেখেছেন মন্ত্রিসভার একাধিক শীর্ষ স্থানীয় সদস্য। আইরিশ পার্লামেন্টের অধিকাংশ সহকর্মীও তাঁকে সমর্থন জানিয়েছেন। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এন্ডা কেনি পদত্যাগ ঘোষণা করার পরে ওই পদের দাবিদার হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন ভরাদকর। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী সমদলীয় সদস্য দেশের আবাসনমন্ত্রী সাইমন কভেনি।

প্রধানমন্ত্রী পদে তাঁর নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা সম্পর্কে সাবধানী লিওর মন্তব্য, ‘এখনই কিছু ভাবছি না। যে বিপুল সমর্থন পেয়েছি তাতে আমি অভিভূত। আসন্ন ডিবেট ও সভাগুলির জন্য সাগ্রহে অপেক্ষা করছি।’ উল্লেখ্য, আগামী ২ জুন নির্বাচনে পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী বেছে নেবেন আয়ার্ল্যান্ডের জনগণ। তার কয়েক দিন পরেই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান।  ২০১৫ সালে বিশ্বের প্রথম রাষ্ট্র হিসেবে নির্বাচনের মাধ্যমে সমকামী বিবাহে আইনি সিলমোহর দেয় আয়ার্ল্যান্ড। ওই বছরই নিজেকে সমপ্রেমী হিসেবে ঘোষণা করেন লিও ভরাদকর। ‘

r
Chobi – leo baradkar