বুখারেস্ট: ভেঙে গেল টি-২০ ক্রিকেটে ১২ বছরের রেকর্ড৷ টি-২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় রানের ব্যবধানে জয় পেল রোমানিয়া৷ আর এই জয়ের নায়ক ভারতীয় বংশোদ্ভুত এক সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়র৷

শুনতে অবাক লাগলেও এক সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়রের হাতে ভাঙল টি-২০ ক্রিকেটে এক যুগের রেকর্ড৷ রোমানিয়া কাপে তুরস্ককে ১৭৩ রানে হারাল রোমানিয়া৷ টি-২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বড় রানে জয়৷ এর আগে ২০০৭ বিশ্বকাপে ১৭২ রানে কেনিয়াকে হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কা৷ এতদিন এটাই ছিল টি-২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে সবেচেয় বেশি রানে জয়ের রেকর্ড৷

রোমানিয়ার রেকর্ড জয়ের কারিগর তামিলনাড়ুর সফরওয়ার ইঞ্জিনিয়র শিবাকুমার পেরিয়ালওয়ার৷ টি-২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে রোমানিয়ার হয়ে প্রথম সেঞ্চুরির মালিক হলেন তিনি৷ ৪০ বলে ১০৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন শিবাকুমার৷ তাঁর ব্যাটিং দাপটে ভর করে তুরস্কের বিরুদ্ধে ৬ উইকেটে ২২৬ রান তোলে রোমানিয়া৷

রোমানিয়ার হয়ে প্রথম টি-২০ সেঞ্চুরির মালিক হয়ে শিবাকুমার বলেন, ‘আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না৷ কারণ আমি এখানে একটি সফটওয়ার কোম্পানির ইঞ্জিনিয়র৷ সপ্তাহের শেষে ক্লুজ ক্রিকেট ক্লাবে আমি ক্রিকেট খেলি৷ তবে গত বছর টি-২০ টুর্নামেন্টে আমরা চ্যাম্পিয়ন৷ সেই পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে আমি রোমানিয়া দলে সুযোগ পাই৷’

শিবাকুমারের জন্ম তামিলনাড়ুর শিবাকাশিতে৷ দেশের সব তরুণের মতোই ক্রিকেট খেলতে সে৷ এ প্রসঙ্গে শিবাকুমার বলেন, ‘ছোট থেকেই আমি ক্রিকেট খেলতাম৷ তামিলনাড়ুতে আমি অনূর্ধ্ব-১৫, অনূর্ধ্ব-২২ ও অনূর্ধ্ব-২৫ টুর্নামেন্টে খেলেছি৷ কিন্তু স্নাতক হওয়ার পর ২০১৫ সালে আমি রোমানিয়া চলে আসি৷ কিন্তু ক্রিকেট আমার এখনও প্যাশন৷ তাই সুযোগ পেলেই ক্রিকেট খেলে যাই৷ রোমানিয়ার ক্রিকেট সম্পর্কে জেনে ক্লুজ ক্রিকেট ক্লাবে যোগ দিই৷’ ৩১ বছরের শিবাকুমার ইতিমধ্যেই ইউরোপিয়ন ক্রিকেট লিগে খেলেছেন৷

ডানহাতি ব্যাটসম্যান ইনিংসের ফাইনালে ওভারে সেঞ্চুরি করেন৷ মাইলস্টোন সম্পর্কে শিবাকুমার বলেন, ‘সেঞ্চুরি সম্পর্কে আমার ধারণা ছিল না৷ কিন্তু ১৫ ওভারের পর থেকে রান-রেট বাড়ানোর লক্ষ্যে মারতে শুরু করি৷ সতীর্থরা বাউন্ডারির জন্য আমাকে উৎসাহিত করে৷’ ২২৭ রান তাড়া করতে নেমে ১৩ ওভারে মাত্র ৫৩ রানে অল-আউট হয়ে যায় তুরস্ক৷ রোমানিয়ার হয়ে কসমিন জাভুই এক ওভারে চার রান দিয়ে তিনটি উইকেট তুলে নেন৷