কলকাতা: রান্নার গ্যাসের সংযোগ নেওয়ার উপায় আরও সহজ করে দিল Indian oil। এবার থেকে ঠিকানার প্রমাণপত্র দাখিল না করেও আপনি পেয়ে যেতে পারেন রান্নার গ্যাসের সংযোগ। আগের চেয়ে এখন গ্যাসের সংযোগ নেওয়ার নিয়মে সরলীকরণ করেছে সংস্থা। ওয়াকিবহাল মহল বলছে, প্রতিযোগিতার বাজারে অন্যদের টেক্কা দিতেই এবার নয়া গেমপ্ল্যান Indian oil-এর। গ্রাহক টানতে দারুণ অফার রাষ্ট্রায়ত্ত এই তেল সংস্থাটির।

এবার থেকে যদি কোনও ব্যক্তি রান্নার গ্যাসের সংযোগ নিতে চান তাঁর ক্ষেত্রে ঠিকানার প্রমাণপত্র দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়। বাড়ির ঠিকানার প্রমাণপত্র ছাড়া সহজেই তিনি রান্নার গ্যাসের সংযোগ পেয়ে যাবেন। আগের থেকে গ্যাসের সংযোগ পাওয়ার পদ্ধতি অনেকটাই সহজ ও সরল হয়েছে ৷ কিছুদিন আগে পর্যন্তও রান্নার গ্যাসের সংযোগ নেওয়ার ক্ষেত্রে ঠিকানার সঠিক প্রমাণপত্র দেওয়া বাধ্যতামূলক ছিল।

তবে এবার গ্যাসের সংযোগ পাওয়ার ক্ষেত্রে জটিল সেই নিয়ম থেকে গ্রাহকদের রেহাইল দিল রাষ্ট্রায়ত্ত এই সংস্থাটি। প্রতিটি পরিবারকে রান্নার গ্যাসের সংযোগ দেওয়া লক্ষ্য কেন্দ্রীয় সরকারের। আগামী ২ বছরে এক কোটিরও বেশি নতুন এলপিজি সংযোগ দেওয়ার লক্ষ্য কেন্দ্রের। গরিব পরিবারগুলিকে বিনা পয়সায় গ্যাসের সংযোগ দিতে উদ্যোগ নিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার।

সেই কারণেই এলপিজি বিক্রিকারী সংস্থাগুলিও জোরদার তৎপরতা নিচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারকে এই পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যে এবার পাশে তেল সংস্থাগুলি। Indian oil এগিয়ে এল গ্রাহক স্বার্থে। আরও বেশি সংখ্য়ায় গ্রাহক টানতে এবার রান্নার গ্যাসের সংযোগ নেওয়ার পদ্ধতি আরও সহজ করা হয়েছে। যাতে সহজেই সাধারণ মানুষ বাড়িতে রান্নার গ্যাসের সংযোগ পেয়ে যেতে পারেন। নিকটবর্তী Indian oil সেন্টারে গিয়ে আবেদন করতে পারবেন গ্রাহকরা।

নিখরচায় গ্যাসের সিলিন্ডার পেতে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার জন্য নির্দিষ্ট একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে। আবেদনপত্র পূরণ করে জমা দিতে হবে নিকটবর্তী এলপিজি সেন্টারে। তবে এর জন্য গ্রাহকদের জনধন যোজনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর, বাড়ির সমস্ত সদস্যের অ্যাকাউন্ট নম্বর, আধার নম্বর ও ঠিকানা ফর্মে থাকা নির্দিষ্ট জায়গায় লিখতে হবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.