কটক: কমনওয়েলথ টেবল টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতের জোড়া সাফল্য৷ ওডিশার কটকে কমনওয়েলথ টেবল টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপে খেতাব জিতলেন ভারতের পুরুষ ও মহিলা দল৷ ভারতের ছেলেরা খেতাব ধরে রাখলেও মেয়েরা প্রথমবার খেতাব জিতলেন৷

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে খেতাব জিতলেন ভারতের ছেলেরা৷ আর সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে প্রথমবার খেতাব জয়ের স্বাদ পান ভারতের মেয়েরা৷ এর আগে ভারতের পুরুষ দল খেতাব জিতলেও একই সঙ্গে কমনওয়েলথ টেবল টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপে পুরুষ ও মহিলার দলগত ইভেন্টে খেতাব জেতে৷

ইংল্যান্ডকে ৩-২ হারিয়ে ভারতীয় পুরুষরা খেতাব জেতেন৷ কিন্তু সিঙ্গাপুরকে ৩-০ হারিয়ে প্রথমবার খেতাব জেতেন ভারতের মহিলা দল৷ গতবারের চ্যাম্পিয়ন সিঙ্গাপুরকে অপ্রত্যাশিতভাবে উড়িয়ে দেন ভারতের মেয়েরা৷ ১৯৯৭ থেকে টানা আটবার খেতাব জিতে এসেছে সিঙ্গাপুর৷ কিন্তু শুক্রবার তাদের হারিয়ে ইতিহাস রচনা করে ভারতীয় মহিলা দল৷

তবে টানা দু’বার খেতাব জিতলেন ভারতীয় পুরুষ দল৷ সুরাতে ২০১৫ সালে খেতাব জিতেছিল ভারত৷ তবে প্রথমবার ভারতীয় পুরুষ দল খেতাব জেতে ২০০৪-এ কুয়ালা লামপুরে৷ বার্থ-ডে বয় হরমীত দেশাই তাঁর ২৬তম জন্মদিনে নিজের পাশাপাশি দেশকে উপহার এনে দেন৷ ফাইনালে ০-২ পিছিয়ে থাকা অবস্থায় ম্যাকবেতের বিরুদ্ধে ম্যাচ জিতে ভারতকে লড়াইয়ে ফেরান দেশাই৷ তাঁর দেখানো পথেই সাথিয়ান ও শরৎ রিভার্স সিঙ্গলসে জিতে বাকি কাজটি করেন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.