নয়াদিল্লি: সীমান্তে কড়া প্রহরা৷ তারই মাঝে জঙ্গি অনুপ্রবেশের রক্তচক্ষু৷ তবে আরও চ্যালেঞ্জ থাকে দেশের সুরক্ষাব্যবস্থার সামনে৷ সেই সুরক্ষা ব্যবস্থাকে নিশ্চিন্ত করে এবার সাফল্য এনে দিলেন ভারতীয় গোয়েন্দারা৷ পাকিস্তানি সেনার ব্যবহার করা গোপন সাংকেতিক ভাষা উদ্ধার করলেন তাঁরা৷ এই ভাষা বা কোড ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিরাও৷ এমনই জানা গিয়েছে গোপন সূত্রে৷

গোয়েন্দা সূত্রে খবর বেশ কয়েকটি কোড ওয়ার্ড পাওয়া গিয়েছিল, যা ভাবাচ্ছিল গোটা গোয়েন্দা দফতরকে৷ মনে করা হচ্ছিল এর সঙ্গে নাশকতার চালানোর বিশেষ যোগ রয়েছে, বিশেষ কিছু বার্তা দেওয়া রয়েছে এই সাংকেতিক ভাষাগুলিতে৷ তারপরেই সাংকেতিক ভাষাগুলি উদ্ধার করতে কাজে লেগে পড়েন গোয়েন্দারা৷

যে শব্দগুলি পাওয়া গিয়েছিল সেগুলি হল, JeM (66/88), LeT (A3) and Al Badr (D9)৷ ১২ই অগাষ্ট গ্রেফতার হওয়া জঙ্গিদের কাছ থেকে এই শব্দগুলি উদ্ধার করা হয়৷ জানা যায় পাক সেনা ও বেশ কয়েকটি জঙ্গি সংগঠন এই শব্দগুলি বেতার তরঙ্গের মাধ্যমে আদান প্রদান করত৷ মুলত পাক অধিকৃত কাশ্মীরে তৈরি করা বেতার স্টেশন থেকে এই বার্তা যেত৷ জম্মু কাশ্মীরে হামলা চালানোর পিছনে এই ধরণের বার্তার বিশেষ ভূমিকা রয়েছে বলে সন্দেহ গোয়েন্দাদের৷

সম্প্রতি জানা গিয়েছে, ভেরি হাই ফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করে পাকিস্তানি সেনা বার্তা আদান প্রদান করছে৷ ভারতের সীমান্তের খুব কাছেই এই বার্তা আদান প্রদানের জন্য রেডিও স্টেশন তৈরি করা হয়েছে৷ গোয়েন্দাদের ধারণা, ভারতের সীমান্তের কাছে বা ভারতীয় সেনার ব্যবহার করা কিছু বার্তাও গোপনে শুনতে চাইছে পাকিস্তান৷

উল্লেখ্য, পাক সেনার ব্যবহার করা কোডগুলি ব্যবহার করছে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন লস্ক-ই-তইবা, জইশ-ই-মহম্মদের একাধিক গোষ্ঠী৷ এরা কাশ্মীরে গড়ে তোলা কিছু মডিউলকে এই কোড ভাষা শিখিয়ে কাজে লাগাচ্ছে বলে খবর গোয়েন্দা সূত্রে৷