নয়াদিল্লি: এই প্রথম নয়, এর আগেও একই ইস্যুতে সুর চড়িয়েছিলেন তিনি। ফের একবার দেশের ফুটবলকে বিশ্বমঞ্চে প্রতিষ্ঠার জন্য তৃণমূল স্তরে উন্নতিতে ফোকাস করতে বললেন দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক বাইচুং ভুটিয়া। ‘পাহাড়ি বিছে’ জানালেন তৃণমূল স্তরে উন্নতি সম্ভব হলেই এশীয় স্তরে এবং বিশ্বস্তরে আর শক্তিশালী হিসেবে প্রতিপন্ন হবে ভারতীয় ফুটবল।

সম্প্রতি অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে ইনস্টাগ্রামে এক ভার্চুয়াল আড্ডায় অংশ নিয়েছিলেন দেশের সাড়াজাগানো প্রাক্তন ফুটবলারটি। সেখানে তিনি জানান, ‘আমাদের ভালোমানের ফুটবলার তৈরিতে নজর দিতে হবে। সেটা ভীষণই গুরুত্বপূর্ণ। তার মানে এই নয় আমাদের দেশে ভালোমানের ফুটবলার নেই। কিন্তু এশীয় স্তরে এবং সেইসঙ্গে বিশ্বমঞ্চে সমীহ আদায় করে নেওয়ার জন্য তৃণমূল স্তর থেকে ভালোমানের ফুটবলার তৈরিতে নজর দিতে হবে আমাদের।’

এখানেই না থেমে দেশের মাটিতে তিন বছরে আগে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া ফিফার ফ্ল্যাগশিপ টুর্নামেন্টের (অনুর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ) প্রসঙ্গ তুল আনেন বাইচুং। তিনি বলেন, ‘অনুর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ আয়োজন করাটা আমাদের কাছে শুভারম্ভের মতো। আমাদের বয়সভিত্তিক ফুটবলারদের জন্য এমনই সর্বোচ্চ পর্যায়ের প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ, বিশ্বমানের অনুশীলন ব্যবস্থা কিংবা বিশ্বমানের কোচ ভীষণই গুরুত্বপূর্ণ। এই বিষয়গুলো দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার জন্য অত্যন্ত ইতিবাচক। আমাদের উচিৎ দেশের তৃণমূল স্তরের ফুটবল ব্যবস্থাকে আরও উন্নত করা যাতে জাতীয় দল আগামীদিনে আরও ভালো ফলাফল উপহার দিতে পারে।’

একইসঙ্গে আগামী বছর অনুর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ আয়োজনের বিষয়টিকে ফেডারেশনের ‘দারুণ পদক্ষেপ’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন ৮২টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা বাইচুং। তাঁর মতে জুনিয়র স্তরে সম্প্রতি প্রভূত উন্নতি করা মহিলা ফুটবলের জন্য এটা দারুণ একটা বিষয়। অনুর্ধ্ব-১৭, অনুর্ধ্ব-১৯ মতো টুর্নামেন্ট আয়োজনের মধ্যে দিয়েই নীচু স্তরে ফুটবলের উন্নতি সম্ভব বলে মনে করেন পাহাড়ি ফুটবলারটি। পাশাপাশি জাতীয় দলের সহকারী কোচ তথা একদা সতীর্থ সন্মুগম ভেঙ্কটেশের সুরে সুর মিলিয়ে ভারতীয় ফুটবলারদের বিদেশি লিগে খেলার ব্যাপারেও সুর চড়িয়েছেন বাইচুং।

ইংল্যান্ডের ক্লাব বুরি এফসি’র হয়ে বর্ণময় কেরিয়ারে ৩৭ ম্যাচ খেলা বাইচুং বলেন, ‘বিদেশি লিগে খেললে বিশ্ব ফুটবল সম্পর্কে ফুটবলারদের একটা সম্যক ধারণা জন্মায়। ফুটবলার হিসেবে পেশাদার হওয়া আর সহজ হয়। আমিও বিদেশি লিগে খেলে অনেক বিষয় সম্পর্কে অবগত হয়েছিলাম, অনেক টেকনিক্যাল বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করেছিলাম।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ