নয়াদিল্লি: দেশে যেভাবে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে তা দেখে দেশিয় মূল্যায়ন সংস্থা ইক্রা নতুন করে পর্যালোচনা করে চলতি আর্থিক বছরে ভারতের জিডিপি পূর্বাভাস দিল। আগে যেখানে ইক্রার হিসেব মনে করেছিল ৯.৫ শতাংশ সংকোচন হবে সেটা এবার আরও বেড়ে গিয়ে ১১ শতাংশ হবে বলে জানিয়েছে।

পাশাপাশি হুঁশিয়ারি দিয়েছে, অসংগঠিত ক্ষেত্র এবং ছোট ছোট ব্যবসা প্রকৃত পরিসংখ্যান পাওয়া গেলে অংকটা আরও খারাপ হতে পারে।

সরকারি হিসাবে এপ্রিল থেকে জুন এই ত্রৈমাসিকে সংকোচন ২৩.৯ শতাংশ হতে পারে বলে বলে জানা গিয়েছিল।

এমন তথ্য সামনে আসায় বিরোধীদের কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থনীতির সমালোচনায় সরব হতে দেখা গিয়েছে। বেশ কিছু সংস্থার পূর্বাভাস রীতিমতো হতাশাজনক। চলতি অর্থবর্ষে অনেকেই এই সংকোচন ১৫ শতাংশের আশেপাশে বলে জানিয়েছে। সে দিক দিয়ে ইক্রার এই পূর্বাভাস সেইমতকেই যেন সমর্থন করছে।

ইক্রার অর্থনীতিবীদ অদিতি নায়েকের অভিমত, বিনোদনের মত ক্ষেত্র যেখানে দূরত্ব বিধিমানা কঠিন সেই সব দিকগুলি মূলত হতাশ করছে। সংক্রমণের আশঙ্কা এবং আর্থিক অনিশ্চিয়তার ফলে চাহিদা ও লগ্নি সিদ্ধান্তে প্রভাব পড়ছে।

এমনিতেই করোনা সংকট দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে। আর্থিক বৃদ্ধির বদলে সংকোচনের কথা বলছে বিভিন্ন সংস্থার রিপোর্ট। রাষ্ট্র সংঘের রিপোর্ট সে দিক থেকে আলাদা না হলেও তুলনায় ভালো ছিল। সম্প্রতিচলতি বছরে রাষ্ট্র সংঘের নিরিখে ভারতের অর্থনীতির সংকোচন ৫.৯ শতাংশ বলা হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।