কলকাতা ২৪x৭: কাউন্ট ডাউন শুরু৷ দরজায় কড়া নাড়ছে দ্বাদশ আইপিএল৷ ভারতের মিলিয়ন ডলার ক্রিকেট লিগের ঢাকে কাঠি পড়ছে ২৩ মার্চ৷ বেশ কিছু ক্রিকেটারদের কাছে এটাই হয়ত শেষ আইপিএল৷ একনজরে দেখে নেওয়া যাক তাঁদের তালিকা-

আরও পড়ুন- ‘ধোনি ফিনিশড’, মাহিকে অবসর নেওয়ার অনুরোধ

১) মহেন্দ্র সিং ধোনি– ক্রিকেট থেকে সবকিছুই পাওয়া হয়ে গিয়েছে৷ দেশের জার্সিতে টি-টোয়েন্টি ও পঞ্চাশ ওভারের বিশ্বকাপ জিতেছেন৷ সামনেই ইংল্যান্ডের মাটিতে আরও এক বিশ্বকাপ৷ দেশের জার্সিতে এটাই হয়ত শেষ পরীক্ষা ধোনির৷ বিশ্বকাপ খেলেই হয়ত ক্রিকেটকে গুডবাই জানাতে পারেন ৩৭-এর মাহি৷ সেক্ষেত্রে এবারই হয়ত ধোনির শেষ আইপিএল৷

কু়ড়ি-বিশের মেগা ক্রিকেট আসরে প্রথম মরশুম থেকে খেলছেন ধোনি৷ দুই মরশুম রাইজিং পুনে সুপারজায়েন্ট ছাড়া বাকি সব মরশুমেই চেন্নাই ফ্র্যাঞ্চাইজির হলুদ জার্সি তার গায়ে চেপেছে৷ ক্যাপ্টেন ধোনির ‘দাগাগিরি’তে তিন’বার (২০১০,২০১১,২০১৮) আইপিএল ট্রফি জয়ের স্বাদ পেয়েছে চেন্নাই৷ সেক্ষেত্রে ধোনিও তার সম্ভবত শেষ আইপিএলে, ট্রফি জিতে শেষ করতে চাইবেন৷

২) যুবরাজ সিং- ধোনির মতো এটাই হয়ত শেষ আইপিএল যুবরাজ সিংয়ের৷ মাহির মতো যুবিও দেশকে দুটি বিশ্বকাপ দিয়েছেন৷ এখন অবশ্য সেসব অতীত৷ জাতীয় দলের কক্ষপথে থেকে অনেক দূরে রয়েছেন যুবরাজ৷ বয়স ৩৭ ছুঁয়েছে৷ শেষ আইপিএলটা একেবারে ভালো যায়নি৷ নতুন মরশুমের নিলামেও প্রামথিকভাবে অবিক্রীত থেকে গিয়েছেন৷ পরে দ্বিতীয় রাউন্ডে তাঁকে দলে নিয়েছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷ যুবির ব্যাটে ম্যাজিক দেখা না গেলে ধারাবাহিকভাবে দলে কতটা সুযোগ পাবেন সেই প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে৷

৩) হরভজন সিং– মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ছেড়ে গত বছরই ধোনির সুপার কিংসে এসেছেন ভাজ্জি৷ ধোনির দলে নতুন মুখদের ভিড়ে অবশ্য লিগের সব ম্যাচে সুযোগ পাননি অভিজ্ঞ এই অফ স্পিনার৷ এবারও কিছুটা এমনই হতে পারে মত ক্রিকেটমহলের৷ ঘুরিয়ে ফিরিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তাঁর হাতে বল তুলে দিতে পারেন মাহি৷ বয়স ৩৮ ছুঁয়েছে, আইপিএলের ইতিহাসে চারবার ট্রফি জিতেছেন৷ ২০১৩,২০১৫,২০১৭ সালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের জার্সিতে আর শেষ বছরে চেন্নাইয়ের জার্সি গায়ে চাপিয়ে চ্যাম্পিয়নের মুকুট মাথায় পড়েছেন৷ জাতীয় দলে কামব্যাক এখন অসম্ভব৷ তাই আইপিএলই নিজের সেরাটা উজার করে দেওয়ার শেষ মঞ্চ৷ ক্রিকেটকে গুডবাই জানানোর পরিকল্পনা থাকলে চেন্নাইকে চ্যাম্পিয়ন করায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেই সেরা ফর্মে বিদায় জানাতে চাইবেন ভাজ্জি৷