নয়াদিল্লি: পুলওয়ামায় হামলার পরের ঘটনা সম্পর্কে অনেকেই অবগত। তবে ঠিক কতটা প্রস্তুতি নিয়েছিল ভারত? এবার সেটাই জানালেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত। বললেন, যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত ছিল ভারতীয় সেনা। এমনকি পাকিস্তানে ঢুকে প্রতিশোধ নিয়ে আসার জন্যও তৈরি ছিল বাহিনী। সোমবার একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে এমনটাই দাবি করেন সেনাপ্রধান।

পুলওয়ামার শাস্তি পাকিস্তানকে দেওয়ার জন্য বিমান থেকে অ্যাটাক করা বা অন্য যে কোনও অভিযানের জন্য যে ভারতীয় সেনা প্রস্তুত সেকথা সরকারকেও জানানো হয়েছিল।

সোমবার অবসরপ্রাপ্ত আর্মি অফিসারদের সঙ্গে বৈঠক ছিল বিপিন রাওয়াতের। বৈঠক শেষে তিনি বলেন বালাকোটের পর ভারত সবদিক থেকে প্রস্তুত ছিল।

বালাকোটে পাক জঙ্গিদের ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিয়ে এসেছিল ভারতীয় বায়ুসেনা। পাকিস্তান সেকথা এতদিন ধরে স্বীকার করেনি। তবে পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে সেই ব্লান্ডারটাই করে বসেন খোদ প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে আক্রমণ করতে এতটাই ব্যস্ত তিনি যে ভুল করে স্বীকার করেই বসেন যে বালাকোটে অভিযান চালিয়েছিল মোদী সরকার। তাঁর দাবি, ভারত নাকি এবার পাকিস্তানের জন্য বালাকোটের থেকেও বড় অভিযানের পরিকল্পনা করছে।

এখানেই শেষ নয়। ইমরান খান এদিন সাফ জানিয়ে দেন, ভারত সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অবতীর্ণ হবেন তিনি। কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যার জেরেই শেষমেশ এই পথেই নাকি হাঁটতে চলেছে পাক সরকার। সম্প্রতি এই ইস্যুতে এক বিস্ফোরক মন্তব্যও করেছেন তিনি।

জানিয়েছেন, কাশ্মীরের স্বাধীনতা ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য দেশের জনগণ প্রস্তুত। এমনকি রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের আদর্শ নিয়েও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তিনি। দেশের ইসলাম সম্প্রদায়ের মানুষকে বঞ্চিত করা হচ্ছে বলেও উস্কানি দিয়েছেন। কাশ্মীর ইস্যুতে কেন্দ্রের পদক্ষেপ নিয়ে সরকারকে কটাক্ষ করেছেন বিশেষভাবে। কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি উল্লেখ করে বলেছেন, এটা উপত্যকার পক্ষেও কঠিন পরিস্থিতি।