নয়াদিল্লি : একের পর এক টেক্কা। সুখোই, মিগ ফাইটার জেটের পর এর চিনুক, অ্যাপাচে সেনা কপ্টার। এবার ফের চিনকে চাপে রেখে ৭২ হাজার আমেরিকান অ্যাসল্ট রাইফেল কিনতে চলেছে ভারতীয় সেনা। এসআইজি ৭১৬ অ্যাসল্ট রাইফেল আমদানি করা হবে ভারতে বলে জানা গিয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে এই অ্যাসল্ট রাইফেলগুলি আমদানি করা হবে বলে খবর। সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের প্রতিবেদনে সেনা সূত্র উদ্ধৃত করে জানানো হয়েছে ভারতীয় সেনা আরও ৭২ হাজার অ্যাসল্ট রাইফেলসের অর্ডার দিতে চলেছে। প্রথম পর্যায়ে ১০ হাজার রাইফেল ইতিমধ্যেই চলে এসেছে ভারতে।

অত্যাধুনিক অ্যাসল্ট রাইফেলস সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় বা যে কোনও বড় অপারেশনে ভারতীয় সেনার ভরসা। বিশেষত জম্মু কাশ্মীরে এই রাইফেলের ব্যবহার বেশি হয়। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে আমেরিকান অ্যাসল্টের প্রথম পর্যায় ভারতে আসে। সেই পর্যায়ে ভারতীয় সেনা হাতে পায় ৭২ হাজার এই প্রযুক্তির রাইফেল।

প্রথম পর্যায়ের ১০ হাজার রাইফেল ডিসেম্বরের ১০ তারিখ ভারতে আসে। দূরের লক্ষ্যবস্তুতে টার্গেট করতে এই রাইফেলের জুড়ে মেলা ভার। ভারতীয় সেনা এমন রাইফেল চেয়েছিল, যেগুলির রেঞ্জ বেশি হবে। ইনসাস রাইফেলের থেকে বেশি ক্ষমতা সম্পন্ন এই রাইফেলের ইন্টারমিডিয়েট কার্টিজ ৭.৬২X৫১ মিমি। সেখানে ইনসাস রাইফেলের কার্টিজ ৫.৫৬X৪৫ মিমি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের ৭০০ কোটি টাকার এই চুক্তিতেই ৭২ হাজার রাইফেল আমদানি করা হবে ভারতে। আমদানি প্রক্রিয়া যাতে দ্রুত হয়, সেই আবেদন করেছে নয়াদিল্লি। এর আগে, ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে অত্যাধুনিক সেনা কপ্টার চিনুক ও অ্যাপাচে এসে পৌঁছয়।

এএইচ-৬৪ই অ্যাপাচে ও সিএইচ-৪৭ এফ(আই) মিলিটারি কপ্টার এবার ব্যবহার করবে বায়ুসেনা। মোট ২২টি অ্যাপাচের মধ্যে শেষ পাঁচটি এসে পৌঁছেছে। বোয়িং ভারতীয় সেনার হাতে এই কপ্টারগুলি তুলে দেয়।

এবছরের মার্চ মাসের শুরুতেই ১৫টি চিনুকের শেষ পাঁচটি তুলে দেওয়া হয় ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে। শুক্রবার সেগুলি এসে পৌঁছয় হিন্ডানে বায়ুসেনা ঘাঁটিতে। চিনুক কপ্টারগুলি ভারি ওজন বহনে সক্ষম। যে ১৭টি দেশের হাতে অ্যাপাচে ও চিনুক তুলে দেওয়া হবে, তার মধ্যে রয়েছে ভারত।

অ্যাটাক হেলিকপ্টার হিসেবে অ্যাপাচের জুড়ি মেলা ভার। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ বেশ কয়েকটি দেশ অ্যাপাচে হেলিকপ্টার ব্যবহার করে। ভারতীয় বায়ুসেনা মোট ২২টি অ্যাপাচের বরাত দিয়েছিল। অ্যাপাচে হেলিকপ্টার সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করে মার্কিন সেনাবাহিনী।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ