নয়াদিল্লি: যুদ্ধের প্রস্তুতি? সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে ভারত৷ পাকিস্তান সীমান্তে মোতায়েন করা হবে অত্যাধুনিক টি-৯০ ভীষ্ম রাশিয়ান ট্যাঙ্ক৷ একটা, দুটো নয়৷ ৪৬০টি ট্যাঙ্ক মোতায়েনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে৷

প্রসঙ্গত, কাশ্মীরের ভয়াবহ জঙ্গি হামলার পরেই ভারতীয় সেনাকে সবধরণের পরিস্থিতির জন্যে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। শুধু তাই নয়, সীমান্ত এলাকায় যে সমস্ত সেনা-জওয়ান অপারেশনে রয়েছেন তাঁদেরকেও হাই-অ্যালার্টে থাকতে বলা হয়েছে বলে সূত্রে জানা গিয়েছে।

এর আগে জানা গিয়েছিল, ভারত পাকিস্তান সীমান্তে পাকিস্তান সেনাও অত্যাধুনিক ট্যাঙ্ক মোতায়েন করছে৷ সীমান্তের ওপার থেকে ছোঁড়া গোলা-বারুদ সীমান্তের এপারে ৩ থেকে ৪ কিমি পর্যন্ত আসতে পারে। এমনকি, মিসাইলও সেগুলি থেকে ছোঁড়া যায় বলে জানা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন : পঞ্চম দফায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকায় অসন্তুষ্ট মুকুল রায়

যদিও পাকিস্তানের এই ব্যবস্থাকে মুহূর্তে গুঁড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা ভারতের রয়েছে বলে সেনা সূত্রে খবর৷ ভারতের কাছে রয়েছে শক্তিশালী এবং দুর্ধর্ষ T-90 ট্যাঙ্ক, যার মধ্যে ভীষ্ম সকলের নজর কেড়েছে৷ এই যুদ্ধট্যাঙ্কগুলি ২০২২ থেকে ২০২৬ সালের মধ্যে ভারতের কাছে চলে আসবে বলে বিশেষ রিপোর্ট জানাচ্ছে৷ ১৩,৪৪৮ কোটি টাকার চুক্তি অনুযায়ী রাশিয়ায় তৈরি এই ট্যাঙ্ক সেনাকে আরও শক্তিশালী করবে৷

মেক ইন ইণ্ডিয়া প্রকল্পে চেন্নাইয়ের আভাদি এলাকার বিশেষ অস্ত্র কারখানায় তৈরি হচ্ছে অত্যাধুনিক ভীষ্ম ট্যাঙ্ক৷ রাশিয়ার প্রযুক্তির সাহায্যে এই ট্যাঙ্ক তৈরি হচ্ছে৷ এক মাস আগেই এই ট্যাঙ্কের নির্মাণ চুক্তি ছাড়পত্র পেয়েছে ভারত৷

সোমবার প্রতিরক্ষামন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সেনার কাছে এই মুহূর্তে প্রায় ১০৭০টি ট্যাঙ্ক রয়েছে৷ তাছাড়াও রয়েছে ১২৪টি অর্জুন ও ২৪০০টি পুরোন মডেলের টি-২৭ ট্যাঙ্ক৷ তবে এই ভীষ্ম ট্যাঙ্কের প্রযুক্তি বাকি সবকিছুকে পিছনে ফেলে দেবে বলেই মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন : রেশনের জ্বালানি কম, ২৫০টাকা লিটার ‘কাটা’ পেট্রোলে চলছে পুরী

এর আগে জানা গিয়েছিল পাকিস্তানের আক্রমণ থেকে নাগরিকদের বাঁচাতে বাংকার তৈরি করা হচ্ছে৷ ইতিমধ্যেই পুঞ্চ ও রাজৌরি জেলায় ৭ হাজার ২৯৮টি বাংকার তৈরি হয়ে গিয়েছে৷ ৭ হাজার ১৬২টি বাংকার তৈরি বাকি রয়েছে৷

সরকারি সূত্রে খবর, মোট ১৪ হাজার ৪৬০টি বাংকার তৈরি হচ্ছে৷ এর জন্য খরচ পড়ছে ৪১৫.৭৩ কোটি টাকা৷ আন্তর্জাতিক সীমানা ও নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর বাংকারগুলি তৈরি করা হবে৷ এর মধ্যে ১৩ হাজার ২৯টি ব্যক্তিগত বাংকার ও ১ হাজার ৪৩১টি গোষ্ঠীগত বাংকার৷ ১৬০ স্কোয়্যার ফিটের ব্যক্তিগত বাংকারে থাকতে পারবে ৮ জন৷ ৮০০ স্কোয়্যার ফিটের গোষ্ঠীগত বাংকারে ৪০ জনের থাকার জায়গা থাকছে৷