ভারতীয় সেনাবাহিনী চাকরি কতটা গর্বের তা আমরা প্রায় সকলে জানি। দেশের প্রধান দুই নায়ক হিসেবে ওপরের তালিকায় রাখা হয় কৃষক এবং সেনাদের। ভারতের প্রায় প্রতিটা মানুষ সেনাবাহিনীর উর্দি পরার স্বপ্ন দেখে। কেউ সেই স্বপ্নকে ছুঁতে পারে, তো কেউ নিরাশ হয়ে ফিরে যায়। তবে সমস্ত প্রতিকূলতা পার করেও যারা সেনাবাহিনীতে কাজ করার কথা ভাবে তাদের জন্য রয়েছে একটি সুখবর। সম্প্রতি ভারতীয় সেনাবাহিনী তাদের Soldier General Duty (Women Military Police) পদে প্রার্থী নিয়োগ করার একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। সেনাবাহিনীর এই পদে মোট ১০০ জন প্রার্থী নিয়োগ করা হবে।

চাকরির বিবরণ (Job Details)

ভারতীয় সেনাবাহিনী তাদের Soldier General Duty (Women Military Police) পদের জন্য ৬ জুন থেকে আবেদনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। আগ্রহী প্রার্থীরা এই পদের জন্য ২০ জুলাই পর্যন্ত আবেদন করতে পারবে। সেনাবাহিনীর তরফে উক্ত পদের জন্য আবেদনের মাধ্যম রাখা হয়েছে অনলাইন। প্রার্থীরা https://joinindianarmy.nic.in/Authentication.aspx ঠিকানার মাধ্যমে পেয়ে যাবে Soldier General Duty (Women Military Police) পদের ফর্মটি।

পাশাপাশি https://joinindianarmy.nic.in/writereaddata/Portal/Notification/747_1_women_MP_rally_notification_-_28_May_2021.pdf লিঙ্কে ক্লিক করলে দেখা যাবে পরীক্ষা, শূন্য পদ সহ বাকি সমস্ত তথ্য ।

পদ সংখ্যা (VACANCY)

ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফে Soldier General Duty (Women Military Police) পদে মোট ১০০ জন প্রার্থী নিয়োগ করা হবে।

বেতন(SALARY)

বিজ্ঞপ্তিতে দেওয়া পদের জন্য মাসিক বেতন কত টাকা করে দেওয়া হবে তা উল্লেখ করা হয়নি। তবে জানানো হয়েছে, সেনাবাহিনীর বেতন তালিকার হিসেবে দেওয়া হবে প্রার্থীদের মাইনে।

বয়সসীমা(Age Limit)

সেনাবাহিনীর Soldier General Duty (Women Military Police) পদে চাকরির জন্য প্রার্থীর বয়সসীমা সাড়ে সতেরো থেকে ২১ বছরের মধ্যে বেঁধে দেওয়া হয়েছে | তবে এই ক্ষেত্রে বয়সের কিছুটা ছাড় মিলবে সংরক্ষিত প্রার্থীদের বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা(Educational Qualification)

দশম শ্রেণীর পরীক্ষায় ন্যূনতম ৪৫% গড় নম্বর সহ প্রতিটি বিষয়ে কমপক্ষে ৩৩% নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হওয়া প্রার্থীরা ভারতীয় সেনাবাহিনী এই পদে চাকরির জন্য আবেদন করতে পারবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.