নয়াদিল্লি: সম্প্রতি ধরা পড়েছে দুই জঙ্গি, যাদের কাছ থেকে পাকিস্তানের হামলার পরিকল্পনার কথা জানতে পেরেছে ভারতীয় সেনা। রীতিমত সাবাদিক বৈঠক করে সেই দুই পাক জঙ্গির বয়ানও প্রকাশ করেছে সেনাবাহিনী। কাশ্মীরে অশান্তি তৈরির জন্যই যে তাদের এপারে পাঠানো হচ্ছিল, সেকথাও স্বীকার করেছে তারা।

বুধবার ভারতীয় সেনাএ চিনার কর্পস একটি সাংবাদিক বৈঠক করে সেই তথ্য প্রকাশ করে। সেখানেও ভিডিওটি প্রকাশকরা হয়।

দু’জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর জানা যায়, পাকিস্তান মরিয়া হয়ে তলে-তলে ভারতে হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা করছে।
জম্মু ও কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকেই পাকিস্তানের ঔদ্ধত্য মাত্রাহীনভাবে বেড়ে গেছে। সেখানকার শান্তি ও স্থিতিশীলতা ইসলামাবাদকে অস্থির করে তোলায় তাঁরা পরিস্থিতির স্বাভাবিকত্ব নষ্ট করতে সন্ত্রাসবাদীদের ব্যবহার করার চেষ্টা করছে। যে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে তারা হল, খলিল আহমেদ ও নাজিম খোকার। যারা পাকিস্তানের পৈশাচিক পরিকল্পনা শুরুতেই ফাঁস করে দিয়েছে।

ওই দুই ব্যাক্তি স্পষ্ট জানিয়েছে, “পাকিস্তানের সেনারা ওদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এবং কাশ্মীরে অনুপ্রবেশ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ভারতীয় সেনাদের টার্গেট করার উদ্দেশ্য রয়েছে।”

এই বিতর্কিত ও উত্তেজনামূলক মন্তব্য প্রসঙ্গে আরও বলেছে, সন্ত্রাসবাদীদের পাক অধিকৃত কাশ্মীরের লস্কর-ই-তৈবা ক্যাম্পে পাঠানো হয়েছে যেখানে তাদের অস্ত্র ব্যবহারের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি, পাকিস্তান সাতজন লস্কর-ই-তৈবা সন্ত্রাসবাদীকে নিয়োগ করা হয়েছে যাদের কাশ্মীরে পাঠানো হয়েছে। আহমেদ ও খোকার দু’জনেই পাকিস্তানী নাগরিক যারা এই দলের একটি অংশ ছিল যেখানে আরও তিনজন আফগান নাগরিক ছিল। তাঁদের মাধ্যমে এই তথ্য প্রকাশ্যে এসেছে সন্ত্রাসবাদীরা ভারতীয় সেনাদের টার্গেট করছে।

আর ভিডিও-টির একেবারে শেষে রয়েছে এক মজার দৃশ্য। দুই জঙ্গিকে গ্লাসে করে চা খেতে দেখা যচ্ছে। এক আর্মি অফিসার তাদের জিজ্ঞাসা করছেন, ‘চা টা কেমন লাগল? তাদের জবাব, ‘খুব ভালো লেগেছে।’