শ্রীনগর: ফের বড়সড় অনুপ্রবেশের ছক বানচাল করল ভারতীয় সেনা৷ জম্মু কাশ্মীরের কুপওয়াড়া সেক্টর দিয়ে পাকিস্তান মদতপুষ্ট জঙ্গিরা ভারত সীমান্তে প্রবেশের চেষ্টা করে৷ নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে একাধিক সন্দেহজনক উপস্থিতি নজর এড়ায়নি সেনার৷ সঙ্গে সঙ্গে জবাব দেওয়া হয়৷

এই নিয়ে একটি ভিডিও ছড়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ শুক্রবার সকাল থেকেই এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়৷ দেখা যায় বেশ কয়েকজন পাকিস্তানি জঙ্গিকে আটকাতে প্রত্যুত্তর দিচ্ছে ভারতীয় সেনা৷ ভারি গুলিবর্ষণ শুরু হয়৷ জানা গিয়েছে ৩০শে জুলাই কাশ্মীরের কুপওয়াড়া সেক্টর দিয়ে পাক জঙ্গিরা ভারত সীমান্তে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়েছে৷ সেদিনই প্রত্যুত্তর দেয় ভারতীয় সেনা৷ আটকানো হয় অনুপ্রবেশ৷

আরও পড়ুন : ‘কাশ্মীর পরিস্থিতি স্বাভাবিক করুন’, ভারতকে বার্তা আমেরিকার

সেনা সূত্রে খবর, পাকিস্তানি জঙ্গিদের ওই দল ভারত সীমান্তের খুব কাছে পৌঁছে গিয়েছিল৷ তবে সেনার চেষ্টায় অনুপ্রবেশের সেই ছক বানচাল হয়ে যায়৷ এর আগে, বিএসএফের গাড়ি জ্বালিয়ে দিল উত্তেজিত জনতা৷ জম্মু কাশ্মীরের বারামুল্লা জেলার পাট্টান এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে৷ এক নাগরিকের সঙ্গে বিএসএফের গাড়ির ধাক্কা লাগায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে৷

বর্ডার সিকিওরিটি ফোর্স সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার এই দুর্ঘটনা ঘটে৷ বিএসএফের গাড়ির চালকও এই ঘটনায় গুরুতর আহত হন৷ তাঁকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷ জানা গিয়েছে, দুটি পাঁচ টনের বিএসএফের গাড়ি বারামুল্লা শ্রীনগর জাতীয় সড়ক ধরে যাচ্ছিল৷ তখনই একটি প্রাইভেট গাড়ির সঙ্গে সেটির ধাক্কা লাগে৷

প্রাইভেট গাড়ির যাত্রীরা বচসা শুরু করে৷ পরে গোটা এলাকার বাসিন্দারা চলে এলে গণ্ডগোল শুরু হয়৷ উত্তেজনা ছড়ায়৷ এরই মাঝে আচমকাই উত্তেজিত জনতা বিএসএফের গাড়িগুলির বিরুদ্ধে নিয়ন্ত্রণহীন গতির অভিযোগ তোলে৷

আরও পড়ুন : ভারতের বিবৃতি বাতিল পাকিস্তানের, ‘নয়া নাটক’ কটাক্ষ দিল্লির

এদিকে, উচ্চপদস্থ গোয়েন্দা আধিকারিকদের একটি সূত্র বলছে সম্প্রতি কাশ্মীরে সক্রিয় হয়ে উঠেছে জইশের একটি মডিউল৷ এই মডিউলে রয়েছে ৮-১০ জন জঙ্গি৷ যারা শ্রীনগর, অবন্তীপোরা, জম্মু, পাঠানকোট ও হিন্দনের মত ভারতীয় বায়ুসেনা ঘাঁটিতে হামলা চালাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে৷

গোয়েন্দাদের এই সতর্কতা পাওয়ার পরেই নড়েচড়ে বসেছে দেশের সিকিউরিটি এজেন্সিগুলি। ইতিমধ্যে সেনাবাহিনী এই বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে। এই সতর্কবার্তা পাওয়ার পরেই বৃহস্পতিবার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল জানান, ইতিমধ্যে সেনাবাহিনীকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। সীমান্তেও নজরদারি বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে।

বিশেষ করে ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের যে সমস্ত স্পর্শকাতর জায়গাগুলি রয়েছে সেখানে বিশেষ নজরদারি চালানোর কথা বলা হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে দোভাল আরও জানিয়েছেন যে কোনও ধরনের হামলা রুখে দেওয়ার জন্যে প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনা।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।