আজ বায়ুসেনার ৮৮ তম প্রতিষ্ঠা দিবস। ১৯৩২ সালে আজকের দিনেই পথ চলা শুরু করেছিল ভারতীয় বায়ুসেনা। প্রতি বছরের মতো এবারও দিল্লি সংলগ্ন গাজিয়াবাদের হিন্ডন এয়ারবাসে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। এতে অংশ নেবে বায়ুসেনার যুদ্ধবিমানগুলি।

তবে এবারে এই অনুষ্ঠানের মধ্যমণি হিসেবে থাকছে রাফায়েল। এছাড়াও চিনুক ও অ্যাপাচি হেলিকপ্টারও উড়ান নেবে আকাশে।

১৯৩২ সালে গঠিত ভারতীয় বায়ুসেনার এমন ১০টি কীর্তির কথা আজ আপনাদের জানাব, যা জানার পর আপনিও ভারতীয় বায়ুসেনার শৌর্যের ভক্ত হয়ে উঠবেন।

১. ভারতের বাইরেও বায়ুসেনার একটি (এবং একমাত্রও বটে) ঘাঁটি রয়েছে। যেটি তাজিকিস্তানের ফারখরের কাছে। এটিই ভারতীয় বায়ুসেনার একমাত্র ঘাঁটি যেটি এ দেশের বাইরে অবস্থিত।

২. ১৩৮০টিরও বেশি যুদ্ধবিমানে বলীয়ান ভারতের আগে রয়েছে মাত্র তিনটি দেশ। তারা হল আমেরিকা, রাশিয়া ও চিন। যার অর্থ আকাশপথে শক্তির দিক থেকে ভারতীয় বায়ুসেনার স্থান চতুর্থ।

৩. উত্তরাখণ্ডে বন্যার হাত থেকে অন্তত ২০ হাজারেরও বেশি দুর্গত মানুষকে বাঁচিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ে ‘মিশন রাহত’। ২০১৩ সালে উত্তরাখণ্ডের ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্তদের উদ্ধারে ভারতীয় বায়ুসেনা যে অভিযান চালিয়েছিল, তা ইতিহাসের সবথেকে বড় অসামরিক উদ্ধারকার্য। ১৭ জুন থেকে শুরু হওয়া উদ্ধারকার্যে মোট ২০ হাজারেরও বেশি আক্রান্তকে উদ্ধার করা হয়। ৩ লক্ষ ৮২ হাজার ৪০০ কিলো খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

৪. ১৯৭১ সালের পাক যুদ্ধের সময় ফ্লাইং অফিসার নির্মলজিৎ সেখোঁকে তাঁর অসামান্য বীরত্বের জন্য দেওয়া হয় মরণোত্তর পরমবীর চক্র। এখনও পর্যন্ত তিনিই ভারতীয় বায়ুসেনার একমাত্র যোদ্ধা, যিনি দেশের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান পেয়েছেন।

৫. দেশের প্রথম মহিলা এয়ার মার্শাল হলেন পদ্মাবতী বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এভিয়েশন মেডিসিনেরও পথিকৃৎ।

৬. এশিয়ার মধ্যে সব থেকে বড় ও বিশ্বের মধ্যে অষ্টম বৃহত্তম এয়ারবেস রয়েছে গাজিয়াবাদে, নাম হিন্দো এয়ারফোর্স স্টেশন।

৭. এ বছরই ভারতীয় বায়ুসেনা প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল অরূপ রাহা ঘোষণা করেছেন, মহিলা পাইলটরা এখন থেকে ভারতীয় যুদ্ধবিমানও ওড়াতে পারবেন। ককপিটের স্বল্প জায়গায় দীর্ঘক্ষণ ধরে বসে বিমান ওড়াতে পাইলটদের যারপরনাই শারীরিক সক্ষমতার দরকার হত বলে এত দিন যুদ্ধবিমান ওড়ানোর অধিকার ছিল শুধুই পুরুষ পাইলটদের।

৮. ভারতীয় বায়ুসেনার নিজস্ব একটি মিউজিয়াম রয়েছে নয়াদিল্লিতে। দিল্লির পালামে অবস্থিত মিউজিয়ামটিতে ১৯৩২ সাল থেকে আজ পর্যন্ত বায়ুসেনার ব্যবহৃত বিমানের বিভিন্ন মডেল ও সরঞ্জাম সাজানো রয়েছে।

৯. ২০০৪ সালে তৈরি গরুড় কমান্ডো ফোর্স ভারতীয় বায়ুসেনার বিশেষ বাহিনী। ইন্ডিয়ার স্পেশাল ফোর্সগুলির মধ্যে গরুড় বাহিনীতে যোগ দেওয়ার প্রশিক্ষণই সব থেকে দীর্ঘকালীন। একজন বায়ুসেনাকে গরুড় বাহিনীতে যোগ দেওয়ার জন্য অন্তত তিন বছরের প্রশিক্ষণ নিতে হয়। এই বাহিনী ভারতের কমান্ডো বাহিনীগুলির মধ্যে নবতর। দেশের সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ বায়ুঘাঁটিগুলিকে নিরাপদ রাখতে সদাসতর্ক এই স্পেশাল ফোর্স।

১০. ফিল্ড মার্শাল স্যাম মানেকশর পর একমাত্র মিলিটরি অফিসার অর্জন সিং, যিনি ফাইভ স্টার র‍্যাঙ্কিং পেয়েছেন। ভারতীয় বায়ুসেনার গর্ব, তিনি তাদেরই এক সময়কার সেনাপতি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।