বেঙ্গালুরুঃ করোনায় কাঁপছে গোটা দেশ। হু হু করে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। শনিবার রাত পর্যন্ত দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১০০০ ছাড়িয়েছে। এখনও পর্যন্ত দেশে মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। গোটা দেশ আজ একজোট হয়ে মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শামিল। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শামিল হয়েছে ভারতীয় সেনাও। ইতিমধ্যে মিশন নমস্তে শুরু করেছে। এবার করোনা যুদ্ধে লড়াই হল ভারতীয় বায়ুসেনাও।

ভারতীয় বায়ুসেনার একটি এয়ার ফোর্স বেসে ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট একটি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার চালু করেছে। এর পাশাপাশি তাঁরা তাঁদের ব্যাঙ্গালুরু কমান্ড হসপিটালকেও করোনা চিকিৎসা কেন্দ্র হিসাবে ব্যবস্থা করে দিয়েছে। বায়ুসেনার জওয়ানরা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে চিকিৎসক ও চিকিৎসার প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম বেঙ্গালুরুর কমান্ড হাসপাতালে পৌঁছে দিচ্ছেন। এরই পাশাপাশি উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে আসা রোগীদের লালা রসের নমুনা সংগ্রহ করে চন্ডিগড় দিল্লির ল্যাবরেটরিতে তারা পৌঁছে দিচ্ছেন। বিশাল এক কর্মযজ্ঞে সামিল তাঁরাও।

দেশে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন ডাক্তার থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যকর্মীরা। এবার সীমান্তে নয়, দেশের মানুষের চিকিৎসায় ইন্ডিয়ান এয়ারফোর্স। যে এলাকাগুলিতে করোনার সবচেয়ে বেশি প্রভাব সেখান থেকে রোগীদের বিমানে তুলে নিয়ে গিয়ে ব্যাঙ্গালোর কমান্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে। একইসঙ্গে চিকিৎসক অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের করোনা মোকাবিলায় বিশেষ প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনা। অন্যদিকে, ভারতীয় সেনা শুরু করতে চলেছে ‘অপারেশন নমস্তে’।

এ প্রসঙ্গে সেনা প্রধান মনোজ মুকুন্দ নরভণি বলেন, ‘আমরা সুস্থ থাকলে আমাদের দেশের মানুষকে সুস্থ রাখতে পারব। তাই এই লকডাউনের পরিস্থিতিতে আমরা একটি টিম গঠন করেছি সাধারণ মানুষের সেবা করার জন্য। তিনি আরও বলেন, ‘যদি কোন ব্যক্তির কোন সমস্যা হয় তাহলে, তাঁরা কাছাকাছি সেনাশিবিরে গিয়ে সাহায্য নিতে পারেন। এছাড়াও যেকোনো হেল্পলাইন নম্বরে সত্ত্বর যোগাযগ করবেন।আমরা অবশ্যই তাঁদের সাহায্য করব’।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য ভারতীয় সেনারা ৮ কোয়ারেন্টিন সেন্টার স্থাপন করেছে। সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নরমণি জানান, ‘সেনারা আগেও বহু যুদ্ধে জয়লাভ করেছে। এবং এবার এই করোনা যুদ্ধেও ভারতীয় সেনারা সম্পূর্ণ জয়লাভ করবেই।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।