মুম্বই: সকল ভারতীয় অভিনেতাদের কাছেই হলিউডে কাজ করা একটা ইচ্ছা পূরণের মত। হলিউডের বিগ বাজেটের ছবিতে কেই না চায় কাজ করতে। করোনা মহামারির পরিস্থিতিতে ছবি মুক্তির শিডিউলে নানা পরিবর্তন এসেছে ঠিকই, কিন্তু তার মাঝেই কিছু ভারতীয় অভিনেতা জায়গা করে নিয়েছে হলিউডে। যে সকল তারকা এবছর হলিউডে কাজ করছেন জেনে নেব তাদের নাম।

ধনুশ: দক্ষিনী ছবির বিখ্যাত অভিনেতা এবং রাজনীকান্তের জামাই ধনুশ দাবি করেছে রুশো ব্রাদার্সের বিগ বাজেট ছবি ‘দ্য গ্রে ম্যান’ এ কাজ করছেন তিনি। এছাড়াও গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে দুশো মিলিয়ন ইউএস ডলারের ‘কিল টিম’ এ দেখা যাবে তাকে। এই বিশাল বাজেটের ছবিতে আনা দে আরমাসকে রয়েছেন প্রধান চরিত্রে।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া: বিশ্ব তারকা হিসাবে অনেক দিন আগেই খ্যাতি অর্জন করেছেন দেশি গার্ল প্রিয়াঙ্কা। এখন তার ঝুলিতে ঝুলিতে বলিউডের কোন ছবি নেই। কারণ দেশি গার্ল এখন রোমাঞ্চকর হলিউড ছবি এবং ওয়েব সিরিজেই ব্যস্ত। রুশো ব্রাদার্সের পরের ওয়েব সিরিজে মুখ্য ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার পাশাপাশি তাকে দেখা যাবে সায়েন্স ফিক্সান ছবি ‘দ্য ম্যাট্রিক্স’ এর ফর্থ সিজেনে।

হুমা খুরেশি: বলিউড তারকা হুমা তার হলিউড ডেবিউ করার খবর প্রকাশ করে সবাইকে অবাক করে দিয়েছেন। তিনি টুইট করে জানিয়েছিলেন, পরিচালক জ্যাক স্নাইডারের আসন্ন জম্বি হেইস্ট ফিল্ম ‘আর্মি অফ দ্য ডেড’ এ কাজ করতে চলেছেন। ছবিতে তার ভুমিকা খুব ছোট হলেও ছবির প্রথম ট্রেলারে তিনি নিজেকে উজ্জ্বল ভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন।

ফারহান আকতার: ফারহান আকতারের মার্ভেল স্টুডিওজের আসন্ন প্রোজেক্টটে কাজ করার খবরে রীতিমত হতবাক করেছে সবাইকে। এই মাসের শুরুতে এই খবর প্রকাশিত হয়েছিল। তারপর ধীরে ধীরে জানা গেছে ফারহান ‘এম এস মার্ভেল’ এর জন্যে সাইন করেছেন। এখানে সুপারহিরোইনের ভূমিকায় রয়েছেন ইমান ভেল্লানি ও কমলা খান। থাইল্যান্ডে চলছে এই প্রোজেক্টের চিত্রগ্রহণ।

আলি ফাজাল: ২০১৫ সালে ‘ফিউরিয়াস ৭’ দিয়ে শুরু হয়েছিল আলির হলিউড যাত্রা। তারপর ২০১৭ এ অস্কার মনোনীত ছবি ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড আবদুল’ এও কাজ করেছেন তিনি। এবার ‘ডেথ অন দ্য নইল’ এ একটি বিশিষ্ট চরিত্রে আলিকে দেখা যাবে। কেনেথ ব্রানাঘের পরিচালিত এই ছবিতে আলি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন। ছবির গল্পটি আগাথা ক্রিস্টির উপন্যাস অবলম্বনে গঠিত। গাল গাদোট এবং আর্মি হামার রয়েছেন এই ছবিতে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.