অকল্যান্ড: অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে ওয়ান-ডে সিরিজে তিনম্যাচের একটিতেও টসভাগ্য সঙ্গ দেয়নি। তবে নিউজিল্যান্ড সফরের প্রথম টি-২০ ম্যাচে টসভাগ্য সঙ্গ দিল বিরাট কোহলিকে। টস জিতে ইডেন পার্কে প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানালেন ভারত অধিনায়ক।

গত বছর কিউয়িদের ডেরায় এসে ১-২ ব্যবধানে টি-২০ সিরিজ হারতে হয়েছিল ভারতীয় দলকে। পাশাপাশি এই ব্ল্যাক ক্যাপসদের কাছে হেরেই বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায়ের স্মৃতি ভারতীয় শিবিরে এখনও টাটকা। তবু ম্যাচের আগেরদিন সাংবাদিক সম্মেলনে বিরাট জানিয়েছেন, কোনও বদলার লক্ষ্য নেই তাঁদের। বরং নিউজিল্যান্ড সফরের পাঁচ ম্যাচের এই সিরিজকে আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবেই দেখছেন তাঁরা।

মুম্বইয়ে প্রথম ম্যাচ হারের পরেও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দুরন্ত কামব্যাক করে ওয়ান-ডে সিরিজ জয়ের বাড়তি আত্মবিশ্বাস নিউজিল্যান্ড সফরে কাজে লাগবে। টস জিতে জানান কোহলি। পাশাপাশি টস জিতে প্রথমে বোলিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে ভারত অধিনায়ক জানান, তরতাজা পিচে প্রথম বোলিং করাটাই শ্রেয় বলে মনে হয়। আমাদের লক্ষ্য থাকবে নতুন বলে দ্রুত উইকেট তুলে নিয়ে বিপক্ষকে চাপে ফেলে দেওয়া।’ একইসঙ্গে জেট-ল্যাগ প্রসঙ্গে বিরাট জানান প্রথম দু’দিনের জেট-ল্যাগ কাটিয়ে আপাতত স্বভাবিক ছন্দে তাঁরা।

দল নিয়ে ম্যাচের আগে সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলি যা বার্তা দিয়েছিলেন তাতে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে দ্বৈত ভূমিকায় কেএল রাহুলের ভূমিকায় সন্তুষ্ট ম্যানেজমেন্ট। তাই ঋষভ পন্ত স্কোয়াডে থাকলেও তাঁকে বাইরে রেখেই দল গঠনের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন অধিনায়ক। এদিন বাস্তবে সেই ঘটনাই প্রতিফলিত হল। পন্তকে বাইরে রেখেই প্রথম ম্যাচে খেলতে নামছে দল। অল-রাউন্ডার হিসেবে রবীন্দ্র জাদেজার পাশে শিবম দুবে। দ্বিতীয় স্পিনার যুবেন্দ্র চাহাল। পেস বিভাগের দায়িত্ব সামলাবেন মহম্মদ শামি, জসপ্রীত বুমরাহ ও শার্দুল ঠাকুর। দলে জায়গা হয়নি কুলদীপ যাদব, নভদীপ সাইনি কিংবা সঞ্জু স্যামসনেরও।

অন্যদিকে টস হেরে কিউয়ি অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন জানান, ‘সিদ্ধান্তটা ৫০-৫০ অবস্থায় ছিল। তবে টস জিতলে ব্যাটিংই নিতাম। কারণ প্রথমে ব্যাট করে বিপক্ষের উপর বড় রানের বোঝা চাপিয়ে দেওয়াই লক্ষ্য আমাদের।’ নিউজিল্যান্ডের জার্সি গায়ে টি-২০ অভিষেক হতে চলেছে ফাস্ট বোলার হামিস বেনেটের।

একনজরে ভারতীয় একাদশ: রোহিত শর্মা, কেএল রাহুল (উইকেটরক্ষক), বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), শ্রেয়স আইয়ার, মনীশ পান্ডে, শিবম দুবে, রবীন্দ্র জাদেজা, মহম্মদ শামি, যুবেন্দ্র চাহাল, জসপ্রীত বুমরাহ ও শার্দুল ঠাকুর।

একনজরে নিউজিল্যান্ড একাদশ: মার্টিন গাপতিল, কলিন মুনরো, কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, রস টেলর, টিম সেইফার্ট (উইকেটরক্ষক), মিচেল স্যান্টনার, টিম সাউদি, ইশ সোধি, ব্লেয়ার টিকনার ও হামিশ বেনেট।