নয়াদিল্লি: দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে আসন্ন ওয়ান-ডে এবং টি২০ সিরিজের জন্য ১৮ সদস্যের ভারতীয় মহিলা দল ঘোষিত হল শনিবার। আগামী ৭-২৩ ফেব্রুয়ারি লখনউয়ের অটল বিহারি বাজপেয়ী স্টেডিয়ামে প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ৫টি ওয়ান-ডে এবং ৩টি টি২০ ম্যাচ খেলবে মহিলা ক্রিকেট দল। লকডাউন পরবর্তী সময় এটাই ভারতীয় মহিলা দলের প্রথম আন্তর্জাতিক অ্যাসাইনমেন্ট।

ওয়ান-ডে এবং টি২০ দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব সামলাবেন যথাক্রমে মিতালি রাজ এবং হরমনপ্রীত কর। তবে ওয়ান-ডে এবং টি২০’র ঘোষিত স্কোয়াডে বেশ কিছু নাম অনুপস্থিত। তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য শিখা পান্ডে, বেদা কৃষ্ণমূর্তি, একতা বিস্ত, তানিয়া ভাটিয়া অন্যতম। প্রাথমিকভাবে তিরুঅনন্তপুরমে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল ম্যাচগুলি, কিন্তু কেরল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন ম্যাচ আয়োজনের বিষয়ে বেঁকে বসায় পরিবর্তিত ভেন্যু হিসেবে লখনউকে নির্বাচিত করা হয়।

ভেন্যু এবং সূচি প্রথমদিকে চূড়ান্ত না হলেও দক্ষিণ আফ্রিকা মহিলা ক্রিকেট দল যে ভারতে খেলতে আসছে সে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছিল খোদ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটের তরফ থেকেই। জৈব নিরাপত্তা বেষ্টনীতে থেকেই গোটা সিরিজ খেলবে দুই দল। গতবছর ৮ মার্চ মেলবোর্নে টি২০ বিশ্বকাপ ফাইনালের পর করোনার জেরে আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা হয়নি দেশের মহিলা ক্রিকেট দলের। কেবল গত নভেম্বরে শারজার মাটিতে উইমেন্স টি২০ চ্যালেঞ্জে অংশ নিয়েছিলেন হরমনপ্রীত-মিতালিরা।

সিরিজ প্রসঙ্গে বিসিসিআই’য়ের ওই আধিকারিক জানিয়েছিলেন, ‘স্বল্প সময়ে ম্যাচ খেলার জন্য প্রস্তুত হওয়া ভারতীয় ক্রিকেটারদের কাছে ভীষণ চ্যালেঞ্জের। তবে সিরিজটা অনুষ্ঠিত হতে চলেছে সেটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। প্লেয়াররা অধীর অপেক্ষা করছিল এই সিরিজটার জন্য।’ উল্লেখ্য, ওয়ান-ডে ম্যাচগুলি অনুষ্ঠিত হবে ৭, ৯, ১২, ১৪ এবং ১৭ মার্চ। তিনটি টি২০ ম্যাচে অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে ২০, ২১ এবং ২৩ মার্চ।

একনজরে ঘোষিত ওয়ান-ডে দল: মিতালি রাজ (অধিনায়িকা), স্মৃতি মন্ধনা, জেমিমা রডরিগেজ, পুনম রাউত, প্রিয়া পুনিয়া, যস্তিকা ভাটিয়া, হরমনপ্রীত কর (সহ-অধিনায়িকা), ডি হেমলতা, দীপ্তি শর্মা, সুষমা বর্মা (উইকেটরক্ষক), শ্বেতা বর্মা (উইকেটরক্ষক), রাধা যাদব, রাজেশ্বরী গায়কোয়াড়, ঝুলন গোস্বামী, মানসী যোশী, পুনম যাদব, সি প্রত্যুষা, মনিকা প্যাটেল।

একনজরে ঘোষিত টি২০ দল: হরমনপ্রীত কর (অধিনায়িকা), স্মৃতি মন্ধনা (সহ-অধিনায়িকা), শেফালি বর্মা, জেমিমা রডরিগেজ, দীপ্তি শর্মা, রিচা ঘোষ, হার্লিন দেওল, সুষমা বর্মা (উইকেটরক্ষক), নুজহাত পারভিন (উইকেটরক্ষক), আয়ুষি সোনি, অরুন্ধতী রেড্ডি, রাধা যাদব, রাজেশ্বরী গায়কোয়াড়, পুনম যাদব, মানসী যোশী, মনিকা প্যাটেল, সি প্রত্যুষা, সিমরন দিল বাহাদুর।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।