বার্মা: দুরন্ত পারফরম্যান্সেও শেষরক্ষা হল না। পয়েন্টের নিরীখে একই মেরুতে থাকলেও গোলপার্থক্যে অলিম্পিকের যোগ্যতা নির্ণায়ক পর্বের পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ হাতছাড়া হল ভারতীয় মহিলা ফুটবল দলের। কোয়ালিফায়ারের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই বিদায় নিশ্চিত হল প্রমিলা ব্রিগেডের।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচের আগে ৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে মায়ানমারের সঙ্গে একই মেরুতে দাঁড়িয়েছিল মহিলা ফুটবল দল। তবে গোলপার্থক্যে ভারতের তুলনায় এগিয়ে ছিল মায়ানমার। তাই প্রথমবার অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জনের প্রশ্নে পরবর্তী রাউন্ডে যেতে জয় ছাড়া দ্বিতীয় কোনও রাস্তা খোলা ছিল না ভারতের। কিন্তু মায়ানমারের মাটিতে মঙ্গলবার প্রতিপক্ষের সঙ্গে ৩-৩ গোলে খেলা শেষ করল মেইমল রকির প্রশিক্ষণাধীন দল।

জয়ের লক্ষ্যে মায়ানমারের মাটিতে মঙ্গলবার আক্রমণাত্মক মেজাজেই শুরু করে প্রমিলা বাহিনী। মাত্র ৯ মিনিটেই রতনবালা দেবীর ক্রস থেকে উইমেন ইন ব্লু’কে এগিয়ে দেন সন্ধিয়া রঙ্গনাথন। কিন্তু সেই লিড বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ১৭ মিনিটেই তুনের গোলে ম্যাচে সমতা ফেরায় মায়ানমার। গোল পেয়ে মায়ানমারের উজ্জীবিত ফুটবলের সামনে ফের ভুল করে বসে ভারতীয় রক্ষণ। বক্সের মধ্যে বিপক্ষের এক ফুটবলারকে অবৈধভাবে বাধা দেওয়ার কারণে পেনাল্টি পায় মায়ানমার।

প্রাথমিকভাবে ভারতীয় দুর্গের শেষ প্রহরী পেনাল্টি রুখে দিলেও ফিরতি বল জালে ঠেলে স্কোরলাইন ২-১ করেন সেই তুন। ৩২ মিনিটে মায়ানমার রক্ষণের ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে সমতায় ফেরে ভারতীয় দল। ২-২ গোলে শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা।

৬৪ মিনিটে দ্বিতীয়বারের জন্য রতনবালা দেবী ভারতকে এগিয়ে দিলেও শেষরক্ষা হয়নি। ৭৩ মিনিটে ভারতীয় ডিফেন্সকে টলিয়ে ম্যাচে নিজের হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করেন মায়ানমার স্ট্রাইকার তুন। ৭৬ মিনিটে ভারত ফের ম্যাচে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন সঞ্জু। শেষ ১৪ মিনিটে স্কোরলাইনে আর কোনও পরিবর্তন না ঘটায় ৩-৩ গোলে অমিমাংসিত অবস্থায় শেষ হয় ম্যাচ। একইসঙ্গে গোলপার্থক্যে ভারতকে সরিয়ে পরবর্তী রাউন্ড নিশ্চিত করে মায়ানমার।