নয়াদিল্লি : সতর্ক করলেন দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা। `Cocon 2020′ শীর্ষক এক সাইবার অপরাধ সংক্রান্ত আলোচনাসভায় অজিত দোভাল জানান দেশে সাইবার অপরাধের সংখ্যা বেড়েছে ৫০০ শতাংশ।

সাইবার অপরাধ সংক্রান্ত জ্ঞান না থাকা বা সাইবার নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতন না হওয়াই এই অপরাধের সংখ্যা বৃদ্ধির প্রধান কারণ বলে মনে করছেন তিনি।

এক ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে নিজের বক্তব্য পেশ করেন এদিন দোভাল। তিনি বলেন কেন্দ্র সদা সচেষ্ট সাইবার অপরাধ মোকাবিলায়। কিন্তু সাধারণ মানুষের মধ্যে এই সম্পর্কে সচেতনতা যথেষ্ট কম। সেই সচেতনতা গড়ে তোলার কাজ করতে হবে।

অজিত দোভালের বক্তব্য, লকডাউনের জেরে অনলাইন বা ডিজিটাল পদ্ধতির ওপরে নির্ভরতা বেড়েছে। কিন্তু এই পদ্ধতি সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান না থাকায় সাইবার অপরাধের শিকার হতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

এদিন দোভাল বলেন, এই লকডাউনের সুযোগ নিয়ে একাধিক ভুয়ো অ্যাপ বাজারে এসেছে, যা ব্যক্তিগত নিরাপত্তা তো বটেই, দেশের নিরাপত্তার জন্যও বড় ঝুঁকি হতে পারে।

এই বিষয়ে বলতে গিয়ে দোভাল আরোগ্য সেতু অ্যাপের উদাহরণ দেন। তিনি বলেন একধিক ভুয়ো আরোগ্য সেতু অ্যাপ রয়েছে। এমনকী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পিএম কেয়ারস ফান্ডের ঘোষণা করার কয়েক ঘন্টার মধ্যে একাধিক ভুয়ো অ্যাপ তৈরি হয়ে গিয়েছে।

সাধারণ মানুষের টাকা হাতানো এই ভুয়ো অ্যাপগুলির যেমন লক্ষ্য, তেমনই ক্ষতি হতে পারে সাধারণ মানুষের ব্যক্তিগত সুরক্ষিত তথ্যের বলে এদিন জানান দোভাল। তিনি বলেন ভুয়ো অ্যাপগুলি মূলত টার্গেট করেছে ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ ও সংস্থাকে।

এই ইস্যুতে কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রক একটি সতর্কবার্তাও জারি করেছে বলে জানা গিয়েছে। কেন্দ্রের তরফে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি তৈরি করা হয়েছে। যারা মূলত চিনা ভুয়ো অ্যাপগুলির ওপর নজরদারি চালাবে বলে জানানো হয়েছে। উল্লেখ্য, ভারতের ওয়েভ, ব্যাংকিং সেক্টরে চিন অন্তত ৪০ হাজার বার সাইবার হামলা চালিয়েছে।

আইটি সেক্টরেও এই হামলা চলেছে।চিনের চেংদু প্রদেশ থেকে মূল সাইবার হানা হচ্ছে বলে খবর। সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে সাইবার হামলা বাড়িয়েছে এই দেশগুলো, বিশেষত চিন। সাইবার অপরাধীরা এক্ষেত্রে করোনা ভাইরাসের আপডেট দেওয়ার নামে ভুয়ো মেল পাঠাচ্ছে।

জানানো হচ্ছে এই মেলগুলিতে নাকি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে, করোনা থেকে নিরাময়ের জাল ওষুধ বিক্রির মেল আসছে। দেওয়া হচ্ছে ভুয়ো তথ্য, পরামর্শ। মোট ছটি দেশের হ্যাকাররা সাইবার হামলার সংখ্যা বাড়িয়েছে। সাইবার হামলার হুমকি আসছে মূলত চিন থেকে।

এছাড়াও রাশিয়া, পাকিস্তান, ইউক্রেন, ভিয়েতনাম ও উত্তর কোরিয়া থেকে হুমকি মিলছে সাইবার হানার। ধারাবাহিকভাবে হামলাও চলছে বলে জানিয়েছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।