রাজকোট: সিরিজের প্রথম ওয়ান-ডে ম্যাচে জয় এসেছে হাসতে হাসতে। তাই বলে আত্মতুষ্টির কোনও জায়গা নেই অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের মনে। বরং সাবধানী অজি দলনায়ক নিশ্চিত রাজকোটে জয় অতটা সহজ হবে না। কঠিন লড়াই ছুঁড়ে দেবে কোহলিব্রিগেড।

সতীর্থ ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারের পাশাপাশি প্রথম ম্যাচে ঝকঝকে শতরান এসেছে তাঁর ব্যাট থেকেও। আর তাতেই দুরন্ত ফর্মে থাকা মেন ইন ব্লু’কে ১০ উইকেটে হারিয়ে যেন বাস্তবের মাটিতে নামিয়ে এনেছে ক্যাঙ্গারু ব্রিগেড। চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে ভারতীয় দলের একাধিক ফাঁকফোকর। কিন্তু তারকায় ঠাসা ভারতীয় দলকে কোনওমতে হালকাভাবে নেওয়ার কারণ দেখছেন না অস্ট্রেলিয়া কাপ্তান।

মুম্বইয়ে দলের সামগ্রিক পারফরম্যান্সে তৃপ্ত ফিঞ্চ দ্বিতীয় ম্যাচের আগে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘মুম্বইয়ে দলের পারফরম্যান্স দারুণ ছিল। ফিল্ডিংয়ে কিছুটা ঘাটতি ছিল তবে ছেলেরা যেভাবে খেলেছে তাতে আমই সত্যিই খুশি।’ একইসঙ্গে ভারতীয় দল প্রসঙ্গে সমীহের সুরে ফিঞ্চ বলেন, ‘ওরা যে কঠিন লড়াই ছুঁড়ে দেবে সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। ওরা শক্তিশালী একটা দল। পাশাপাশি ভারতীয় দলে উপস্থিত একাধিক বিশ্বমানের ক্রিকেটার।’

ওয়ার্নারের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে তাঁর রেকর্ড পার্টনারশিপ প্রসঙ্গেও আলাদা করে বাক্য খরচ করেন ফিঞ্চ। উল্লেখ্য, ভারতের ছুঁড়ে দেওয়া ২৫৬ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে ওয়ার্নার অপরাজিত থাকেন ১২৮ রানে এবং ১১০ রানে অপরাজিত থাকেন ফিঞ্চ। সতীর্থ ওয়ার্নারকে প্রশংসায় ভরিয়ে ফিঞ্চ জানান, ‘ও অবিশ্বাস্য রকম ভালো ক্রিকেট খেলছে। ক্রিজে একবার থিতু হয়ে গেলে ওকে ঠেকানো সত্যিই কঠিন। মাঠের প্রত্যেকটা কোনে বল পাঠাতে সিদ্ধহস্ত ও। তাই ওকে রান করা থেকে আটকানোর বিষয়টা প্রতিপক্ষের কাছে বেশ চাপের।’

ওয়ার্নারকে নিয়ে ফিঞ্চের সংযোজন, ‘ও যখন ব্যাট করতে নামে ওর চিন্তাভাবনা একদম পরিষ্কার থাকে। পাশাপাশি ওর ফুটওয়ার্ক ভীষণই ভালো। ব্যাট হাতে মাঠে মানসিকভাবে অনেক ঠান্ডা থাকে ওয়ার্নার। দারুণ শেপে রয়েছে ও।’ একইসঙ্গে গত ম্যাচে মিডল ওভারে বোলারদের পারফরম্যান্সও মনে ধরেছে ফিঞ্চের। তবে রাজকোটে প্যাট কামিন্স কিংবা মিচেল স্টার্কের ওয়ার্কলোড কমিয়ে একাদশে ঢোকার সম্ভাবনা প্রবল জোস হ্যাজেলউডের। জানালেন ফিঞ্চ।