মুম্বই: দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের প্রথম দু’টি ম্যাচে অনায়াসে জয় এসেছে৷ বৃহস্পতিবার  তৃতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের মুখেমুখি হতে চলেছে ভারত৷ নটিংহ্যামের টানা বৃষ্টিতে কিউয়ি ম্যাচ ঘিরে অনিশ্চয়তার বাতাবরণ তৈরি হয়েছে বটে, তবে সমর্থকদের মনে এখন থেকেই ঘোরাফেরা করছে পরবর্তী পাকিস্তান ম্যাচের প্রসঙ্গ৷

আগামী রবিবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের ভারত-পাক মহারণ ঘিরে উত্তেজনা বাড়ছে সীমান্তের দু’দিকেই৷ বিশ্বকাপের অফিসিয়াল সম্প্রচার সংস্থা স্টার স্পোর্টস শুরু থেকে ভারতের একটা করে ম্যাচ ধরে প্রমোশন চালালেও হঠাৎ করে তাদের তালিকা থেকে বাদ পড়েছে নিউজিল্যান্ড ম্যাচের প্রোমো৷ সেই জায়গায় পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কোহলিদের লড়াই জমাতে আসরে নেমে পড়েছে তারা৷ দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে কোহলিদের প্রথম দু’টি ম্যাচের জন্য আলাদা আলাদা প্রমোশনাল ভিডিও তৈরি করে স্টার৷ তবে তৃতীয় ম্যাচের আগে থেকেই তারা শুরু করে দেয় ভারত-পাক ম্যাচের বিজ্ঞাপণ৷

গত বিশ্বকাপে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করা ‘মওকা মওকা’ বিজ্ঞাপণকে আরও একটু মশলা লাগিয়ে ফেরত আনে স্টার স্পোর্টস৷ জবাবে পাকিস্তানের টেলিভিশন চ্যানেলগুলিতে প্রচার করা হয় অভিনন্দন বর্তমানকে নিয়ে তৈরি করা বিদ্রুপাত্মক প্রোমোশনাল বিজ্ঞাপণ৷ বোঝাই যাচ্ছে যে, মাঠের বাইরে যুযুধান দু’দেশের ক্রিকেট ম্যাচ ঘিরে উত্তপ্ত হচ্ছে পরিবেশ৷ পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর বিশেষ করে এই ম্যাচটি ঘিরে জলঘোলা হয় বিস্তার৷ ভারতীয় বোর্ডের তরফে চেষ্টা করা হয় বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্যাচ না খেলার৷ তবে আইসিসি’র সমর্থন মেলেনি তাতে৷

এমন সম্মান রক্ষার মহাযুদ্ধে ভারতের পাল্লা নিঃসন্দেহে ভারি দেখাচ্ছে৷ সেটা শুধু বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে একশো শতাংশ জয়ের রেকর্ডের জন্যই নয়, বরং কোহলিদের সাম্প্রতিক ফর্মের নিরিখেও বটে৷ পাকিস্তানের সঙ্গে তুলনামূলক আলোচনায় গেলে টিম ইন্ডিয়ার পারফরম্যান্স সংশয়াতীতভাবেই অনেক ধারাবাহিক৷ এই অবস্থায় টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক কপিল দেব পাকিস্তান ম্যাচে এগিয়ে রাখছেন ভারতকেই৷ ৮৩ বিশ্বকাপজয়ী ভারত অধিনায়কের সাফ কথা, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অবশ্যই জয় তুলে নেবে কোহলিরা৷

কপিল বলেন, ‘ভারতীয় দল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অবশ্যই জয় তুলে নেবে৷ কারণ, এই মুহূর্তে ওরা দারুণ ক্রিকেট খেলছে৷ যখন আমি ক্রিকেট খেলতাম, পাকিস্তানকেই ফেভারিট ধরা হতো৷ এখন ছবিটা বদলেছে৷ ভারত এখন পাকিস্তানের থেকে অনেক ভালো দল৷ সুতরাং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচের প্রসঙ্গে ভারতই ফেভারিট৷’

অন্যদিকে ধাওয়ানের চোট প্রসঙ্গে কপিল দেব বলেন, ‘বিশ্বকাপের মতো বড় টুর্নামেন্টে চোট-আঘাতের প্রসঙ্গ থাকবেই৷ এতে হতাশ হওয়ার কিছু নেই৷ নেতিবাচকভাবে নেওয়া উচিত নয় চোটের প্রসঙ্গকে৷ বরং আশা করা উচিত যে, ওর পরিবর্তে যাকে দলে নেওয়া হবে, সেও বিশ্বকাপে ভালো ক্রিকেট খেলবে৷’