নয়াদিল্লি : রাম মন্দির নিয়ে কথা বলার অধিকার পাকিস্তানের নেই। এই নিয়ে মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকুক ইসলামাবাদ। কড়া বার্তা ভারতের। বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে ভারত জানায় এই ধরণের মন্তব্য সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক। কোনওভাবেই তা সমর্থনযোগ্য নয়।

ভারতের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে রাম মন্দির নিয়ে এই ধরণের কথা বলছে পাকিস্তান। এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তা নিয়ে কথা বা সমালোচনাকে মান্যতা দেবে না নয়াদিল্লি। ভারত তার সংখ্যালঘুদের ধর্মাচারণকে যথেষ্ট গুরুত্ব সহকারে দেখে।

কারণ ভারত একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ। এখানে সব ধর্মই সমান গুরুত্ব পায়। অনুরাগ শ্রীবাস্তব এদিন বলেন রাম মন্দিরের ভূমিপুজোর পরে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের তরফ থেকে প্রকাশিত বিবৃতি পেয়েছে নয়াদিল্লি।

এর কড়া সমালোচনা করা হচ্ছে। এই ধরণের সংকীর্ণ মানসিকতামূলক মন্তব্য করা থেকে পাকিস্তানের বিরত থাকা উচিত। তবে ভারতের বিদেশ মন্ত্রক বৃহস্পতিবার জানিয়েছে যে দেশ সীমান্ত সন্ত্রাসে মদত দেয়, নিজের দেশের সংখ্যালঘুদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করে, সেই দেশের থেকে এই ধরণের মন্তব্যই আশা করা যায়। উল্লেখ্য, বুধবার অর্থাৎ ৫ই অগাষ্ট রাম মন্দিরের ভূমি পুজো নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে ইসলামাবাদ।

এদিন পাকিস্তান জানায়, রাম মন্দিরের ভূমি পুজো করে দেশের সংখ্যালঘুদের অপমান করেছে ভারত। সংখ্যাগরিষ্ঠদের বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। সুপ্রিম কোর্টের রায়েরও সমালোচনা করে পাকিস্তান।

মুসলিম সম্প্রদায়ের কথা তুলে ধরে ইসলামাবাদ জানায়, ভারতের সংখ্যালঘুরা আতঙ্কে রয়েছে। রাম মন্দিরের ভূমি পুজোতে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্ট আমাকে এক মহান ইতিহাসের অংশ হওয়ার সুযোগ দিয়েছেন। এটা আমার সৌভাগ্য। আমাকে তো এখানে আসতে হতই। দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মতোই রাম মন্দিরের জন্য কয়েক শতাব্দী ধরে অনেকে আন্দোলন করেছেন। আজ তারই ফল পেয়েছি আমরা।’

এরই পাশাপাশি রাম মন্দির তৈরিতে আন্দোলনকারীদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘যাঁদের ত্যাগ ও বলিদানের জন্য রাম মন্দিরের স্বপ্ন পূর্ণ হয়েছে, ১৩০ কোটি দেশবাসীর তরফ থেকে তাঁদের প্রণাম জানাই। ভগবানের রামের অদ্ভুত শক্তি দেখুন। ইমারত ধ্বংস করে অস্তিত্ব মিটিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু রাম এখনও আমাদের মনে রয়েছেন। আমাদের সংস্কৃতির আধার। শ্রীরাম ভারতের মর্যাদা, ভারতের মর্যাদা পুরুষোত্তম।’

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা