ব্রিসবেন: সিরিজ ১-১ অবস্থায় শেষ টেস্টে নামছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া৷ ব্রিসবেন টেস্ট ড্র হলে বর্ডার-গাভাস্কর ট্রফি ধরে রাখবে ভারত৷ কারণ শেষবার অর্থাৎ ২০১৮-১৯ মরশুমে অস্ট্রেলিয়া সফরে সিরিজ জিতেছিল টিম ইন্ডিয়া৷ কিন্তু অস্ট্রেলিয়াকে বর্ডার-গাভাস্কর ট্রফি ফেরত পেতে হলে গাব্বায় জিততেই হবে টিম পেইনদের৷

তবে ব্রিসবেন টেস্টে থাকছে বৃষ্টির ভ্রুকুটি৷ আবহাওয়ার পূর্বাভাস ম্যাচের চতুর্থ দিন থাবা বসাতে পারে বৃষ্টি৷ বজ্রবিদ্যুত-সহ বৃষ্টি হতে পারে৷ সিডনিতে তৃতীয় টেস্টেও থাবা বসিয়েছিল বৃষ্টি৷ প্রথম দিনের খেলা বৃষ্টির জন্য দীর্ঘক্ষণ খেলা বন্ধ ছিল৷ শেষ পর্যন্ত সিডনি টেস্ট ড্র হয়৷

ব্রিসবেনে ১১ জন ফিট ক্রিকেটারকে খেলানোয় চ্যালেঞ্জ ভারতীয় টিম কাছে৷ যে কারণে বৃহস্পতিবার চতুর্থ টেস্টের একাদশ ঘোষণা করতে পারেনি ভারত৷ শুক্রবার ম্যাচের আগে প্রথম একাদশ ঘোষণা করবে ভারতীয় থিঙ্কট্যাঙ্ক৷

সিডনি টেস্টের পঞ্চম দিন ভারতীয় ড্রেসিংরুম ছিল হাসপাতালের ওয়ার্ড৷ রবীন্দ্র জাদেজা ব্যাটিং করার সময় বাঁ-হাতের বুড়ো আঙুলে চোট পান৷ সিডনি টেস্টের পর ব্রিসবেন টেস্টের দল থেকে ছিটকে যান রবীন্দ্র জাদেজা ও হনুমা বিহারী৷ বাঁ-হাতের বুড়ো আঙুলের হাড় সরে যাওয়ায় অস্ত্রোপচার করতে হয় জাদেজার৷ হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের কারণে একই অবস্থা হয় বিহারীর৷ আর পেটের ব্যাথ্যার কারণে গাব্বায় না-খেলার সম্ভাবনা বেশি জসপ্রীত বুমরাহের৷

অ্যাডিলেডে প্রথম টেস্ট জিতে অস্ট্রেলিয়া সিরিজের এগিয়ে গেলেও মেলবোর্নে দ্বিতীয় টেস্ট জিতে সমতা ফেরায় ভারত৷ সিডনিতে তৃতীয় টেস্ট ড্র হয়৷ অ্যাডিলেডে লজ্জাজনক হারলেও দ্বিতীয় টেস্টেই ঘুরে দাঁড়ায় টিম ইন্ডিয়া৷ সিডনিতেও দারুণ লড়াই করে ম্যাচ ড্র করতে অজিঙ্ক রাহানের দল৷ কিন্তু ব্রিসবেনে মাঠে নামার আগে ভারতীয় দলের প্রধান সমস্যা চোট-আঘাত৷

এই টেস্ট বৃষ্টির কারণে ড্র হলে বর্ডার-গাভাস্কর ট্রফি ধরে রাখবে ভারত৷ কিন্তু অস্ট্রেলিয়াকে বর্ডার-গাভাস্কর ট্রফি ফিরে পেতে এই টেস্ট জিততেই হবে৷ একই সঙ্গে এই টেস্ট জিতলে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এক নম্বর জায়গা ধরে রাখবে টিম পেইনের দল৷ আর অজিঙ্ক রাহানেরা গাব্বায় জিতলে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে শীর্ষস্থান ফিরে পাবে টিম ইন্ডিয়া৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।