টোকিও: শুক্রবার তিন দিনের ভারত সফরে আসছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। জাপানি প্রযুক্তিতে ভারতে বুলেট ট্রেন চালানোর বিষয়ে চূড়ান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে চলেছে তার পরের দিন অর্থাৎ চলতি সপ্তাহের অন্তিম দিনে।

শনিবার বুলেট ট্রেন সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার পর দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী যৌথ বিবৃতি দেবেন বলে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে  জাপানের একটি বাণিজ্য পত্রিকায়। প্রতিবেদনটিতে আরও বলা হয়েছে যে, প্রাথমিক অবস্থায় ভারতে মুম্বই এবং আমেদাবাদ শহরের মধ্যে চালু হবে বুলেট ট্রেন। ৫০৫ কিমি এই রেল প্রকল্পের মোট খরচ ১৪.৬ বিলিয়ন ডলারের মধ্যে জাপান ৮.১ ডলার ঋণ দিয়ে সাহায্য করবে।

ভারত দ্বিতীয় রাষ্ট্র হতে চলেছে যেখানে জাপানি প্রযুক্তিতে ছুটবে বুলেট ট্রেন। এর আগে জাপানের বাইরে এই প্রযুক্তির বিষয়ে তাইওয়ানের সঙ্গে ২০০৭ সালে চুক্তি করেছিল জাপান। তারপরে ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে প্রাথমিক পর্যায়ের আলোচনা হলেও বাস্তবায়িত হয়নি দ্রুত গতির রেল প্রকল্প। ভারতে প্রস্তাবিত ২০১৭ সালে বুলেট ট্রেন প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার কথা। প্রকল্পের সময়সীমা ২০২৩ অবধি ধার্য করা হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।