ইন্দোর: প্রথম টেস্ট তিন দিনেই জিতে নেওয়া গোলাপি বলে বাড়তি দু’দিন প্র্যাকটিস করার সুযোগ পাবেন বিরাটরা৷ শনিবার বাংলাদেশকে ইনিংস ও ১৩০ রানে হারিয়ে দুই টেস্টের সিরিজে ১-০ এগিয়ে যায় ভারত৷ মাত্র তিন দিনেই বেঙ্গল টাইগারদের হারিয়ে দেওয়ায় গোলাপি বলে রবিবার থেকেই প্র্যাকটিসে নেমে পড়বেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা৷

ইডেনে ঐতিহাসিক ডে-নাইট টেস্ট শুরু হচ্ছে ২২ নভেম্বর অর্থা শুক্রবার থেকে৷ কিন্তু ইন্দোরে দু’ দিন আগে ম্যাচ শেষ হওয়ায় রবিবার হোলকর স্টেডিয়ামেই ইডেন টেস্টের প্র্যাকটিস শুরু করে দেবে কোহলি অ্যান্ড কোং৷ ইন্দোরে দু’দিন প্র্যাকটিস করার পর কলকাতার উদ্যেশে রওনা দেবে টিম ইন্ডিয়া৷ ইডেনে ঐতিহাসিক দিন-রাতের টেস্টের আগে কিছুটা হলেও সংশয়ে রয়েছে ভারতীয় শিবির৷ কারণ প্রথমবার গোলাপি বলে দিন-রাতের টেস্টে খেলতে নামবে বিরাট-রোহিতরা৷ ফ্লাড-লাইটে গোলাপি বলের আচরণ কেমন হবে তা নিয়ে দ্বিধায় রয়েছেন ব্যাটসম্যানরা৷ পাশাপাশি বলের সুইং এবং স্পিন নিয়ে সন্দিহান ভারতীয় বোলাররাও৷

শনিবার ইন্দোরে ম্যাচের পর টিম ইন্ডিয়ার এক নম্বর স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন গোলাপি বল হাতে নিয়ে বলেন, ‘জানি না গোলাপি বলে কতটা স্পিন করবে৷ তবে এই টেস্টের আগে আমরা দু’টি সেশন এই বলে প্র্যাকটিস করেছি৷ রবিবার থেকেই আবার প্র্যাকটিস শুরু করে দেব৷’ তবে প্রথম দিকে একটু অসুবিধা হলেও আস্তে আস্তে মানিয়ে নিতে কোনও সমস্যা হবে না বলেও জানান বিরাটের দলে এই অফ-স্পিনার৷ পিংক টেস্টের জন্য নতুন করে সেজে উঠছে ক্রিকেটের নন্দনকানন৷ ঐতিহাসিক এই টেস্ট ঘিরে দশর্কদের মধ্যে বাড়তি উন্মাদনা দেখা দিয়েছে৷ ইতিমধ্যে ইডেনে টেস্টে প্রথম তিন দিনের টিকিট বিক্রি হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ৷

চার বছর আগেই ডে-নাইট টেস্টের সাক্ষী থেকেছে ক্রিকেটবিশ্ব৷ ২৭ নভেম্বর, ২০১৫ অ্যাডিলেড ওভারে গোলাপি বলে প্রথম দিন-রাতের টেস্ট ম্যাচটি হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে৷ প্রথম ডে-নাইট টেস্টে নিউজিল্যান্ডকে ৩ উইকেটে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া৷ এখনও পর্যন্ত ১১টি ডে-নাইট টেস্ট হয়েছে৷ ২২ নভেম্বর ইডেনে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচটি দ্বাদশ ডে-নাইট টেস্ট৷ অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা ইতিমধ্যেই দিন-রাতের টেস্ট খেললেও ভারত ও বাংলাদেশ৷

ভারতের মাটিতে এটাই প্রথম ডে-নাইট টেস্ট৷ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের চেয়ার বসার পর থেকেই ভারতের মাটিতে ডে-নাইট টেস্টের ভাবনা শুরু করে দেন৷ ভাবনাকে বাস্তাবে রূপ দিতে বেশি সময় নেননি প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক৷ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে দুই টেস্টের সিরিজে দ্বিতীয় তথা শেষটি টেস্টটি দিন-রাতের করার সিদ্ধান্ত নেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট৷