Vaccine

নয়াদিল্লি: দেশজুড়ে মারণ ভাইরাসের (Corona) তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড পরিস্থিতি। দিনে দিনে রেকর্ড হারে মানুষজন করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। থেমে নেই মৃতের সংখ্যাও। এমন উদ্বেগজনক পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাঁধ সেধেছে দেশের বিপর্যস্ত স্বাস্থ্য পরিকাঠামো। হাসপাতালে নেই শয্যা, মিলছে না পর্যাপ্ত অক্সিজেনও (Oxygen)। এমন সংকটজনক পরিস্থিতির মধ্যেও একাধিক রাজ্য ভ্যাকসিনের ঘাটতির অভিযোগ করে আসছে। এমন পরিস্থিতিতে দেশের ভ্যাকসিন রফতানি (Vaccine Export) অক্টোবর মাস পর্যন্ত পুরোপুরি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার (Modi Govt)। এমনটাই জানা যাচ্ছে সুত্র মারফত।

উল্লেখ্য, গোটা দেশ করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় যখন বিপর্যস্ত, তখন গত একমাস আগে ভারত বিদেশে ভ্যাকসিন (Vaccine) রফতানি বন্ধ করেছে। তার আগে কমপক্ষে ৬৬ লক্ষ কোভ্যাকসিনের ডোজ বিদেশে রফতানি করেছে ভারত। সুত্র মারফত এও জানা যাচ্ছে যে, ভারত বিদেশে ভ্যাকসিন রফতানি অক্টোবর পর্যন্ত বন্ধ করে দেশে টিকাকরণ অভিযানের উপর জোর দেবে। তবে গত একমাস আগে ভারত বিদেশে ভ্যাকসিন রফতানি বন্ধ ঘোষণা করার পরই উদ্বেগপ্রকাশ করেছিল বাংলাদেশ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং আফ্রিকার অনেক দেশ।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৬৩ হাজার ৫৩৩ জন। সোমবারের তুলনায় আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা কম। সোমবার ২ লক্ষ ৮১ হাজার ৩৮৬ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন। নিঃসন্দেহে এটি কিছুটা স্বস্তিদায়ক। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতের সংখ্যা অবশ্য বেড়েছে। সোমবার যেখানে ৪ হাজার ১০৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল সেখানে মঙ্গলবারের হিসেব বলছে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৩২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে আশা জাগাচ্ছে দৈনিক সুস্থতার হার। সোমবারের তুলনায় সুস্থতার হার অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। সুস্থতার হার এদিন দৈনিক সংক্রমণের থেকে বেশি তো অবশ্যই। তাছাড়া এদিন সুস্থতার সংখ্যা পেরিয়েছে ৪ লক্ষের গণ্ডি। সোমবার ৩ লক্ষ ৭৮ হাজার ৭৪১ জন সুস্থ হয়েছিলেন। আর মঙ্গলবারের রিপোর্ট বলছে সুস্থতার সংখ্যা গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ লক্ষ ২২ হাজার ৪৩৬ জন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.