রাধিকাপুর (উত্তর দিনাজপুর): রেলপথই এখন ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক লেনদেনের ভরসা। টানা লকডাউনের মাঝে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু ভয় নিয়েই বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি শুরু হয়েছে। প্রথম ধাপে ১,৬০০ টন পেঁয়াজ উত্তর দিনাজপুরের রাধিকাপুর থেকে প্রতিবেশী দেশের বিরল স্থল বন্দরে পাঠানো হয়েছে।

গত ৪ মে সড়কপথের পরিবর্তে শুধু রেলপথের মাধ্যমে পণ্য পরিবহনের সিদ্ধান্ত নেয় দুটি দেশ। করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে ভারত ও বাংলাদেশে। দুটি দেশেই সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়ছে। দক্ষিণ এশিয়ায় সর্বাধিক করোনা মৃত্যুর কেন্দ্র ভারত। আর পশ্চিমবঙ্গেও বড়সড় আকারে ভাইরাস সংক্রমণে মৃত্যু হচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে লকডাউনের কারণে সড়কপথে দুই দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ। বুধবার থেকে রেলপথে শুরু হল বাণিজ্যিক কাজকর্ম। সবুজ সংকেত আসতেই বাংলাদেশের দিনাজপুর জেলার বিরল স্টেশন থেকে সীমান্ত পেরিয়ে উত্তর দিনাজপুরের রাধিকাপুরে আসে ট্রেন।

বুধবারেই রাধিকাপুর থেকে পেঁয়াজভর্তি ৪২টি ওয়াগনবাহী ওই ট্রেন ফের চলে যায় বাংলাদেশের সীমান্ত স্টেশন বিরলে। এতদিন আমদানি বন্ধ থাকায় বাংলাদেশে পেঁয়াজ সংকট চলছিল। ভারতত থেকে পেঁয়াজ ঢুকে যাওয়ায় বাংলাদেশের বাজারে সেই সংকট কাটতে চলেছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV