নয়াদিল্লি: এ বার ২৯টি মার্কিন পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে সীমাশুল্ক বাড়াতে উদ্যোগী হয়েছে ভারত সরকার। সংবাদসংস্থা পিটিআই এমনটাই জানিয়েছে ৷ শীঘ্রই এই বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে। ওই তালিকায় রয়েছে আমন্ড, ওয়ালনাট ও আপেলের মতো ২৯টি পণ্য যাদের এবং যাদের মূল্য প্রায় ২৩.৫০ কোটি মার্কিন ডলার ৷ আগামী ২৮ ও ২৯ জুন জাপানের ওসাকায় জি-২০ গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখোমুখি হওয়ার কথা ৷ তার আগে কেন্দ্রের এমন সিদ্ধান্ত বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ।

প্রসঙ্গত ৫ জুন ট্রাম্প সরকার রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র না কেনার জন্য ভারতের উপর পরোক্ষ চাপ তৈরি করার পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে জেনেরালাইজড সিস্টেম অফ প্রেফারেন্সেসের (জিএসপি) আওতায় ভারতকে দিয়ে আসা বাণিজ্যিক সুবিধা বাতিল করে দিয়েছে। এই জিএসপি-র আওতায় প্রায় ৫৬০ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের ভারতীয় পণ্য বিনা সীমাশুল্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আমদানি করা হতো।

তাছাড়া গত বছর ভারতীয় স্টিল ও অ্যালুমিনিয়াম পণ্যের উপর সীমাশুল্কও এক তরফা ভাবে বাড়িয়েছিল ট্রাম্প প্রশাসন। অবশ্য পাল্টা জবাব হিসেবে গত বছর মে মাসে ভারত সরকার এই ২৩.৫ কোটি ডলার মূল্যের মার্কিন পণ্য আমদানির উপর ১২০ শতাংশ পর্যন্ত শুল্ক বাড়াতে চায় কিন্তু, বার বার সে ব্যাপারে থেকে পিছিয়ে আসে।

প্রসঙ্গত, মার্কিন আমন্ডের সবচেয়ে বড় ক্রেতা হল ভারত৷ সেখান থেকে আমন্ডের মোট রফতানির প্রায় অর্ধেকই ভারতে হয়, যার অর্থমূল্য হল ৫৪.৩০ কোটি ডলার। তাছাড়া মার্কিন আপেলেরও অন্যতম বড় ক্রেতা হল ভারত৷ গত বছর ১৫.৬ কোটি ডলার মার্কিন আপেলের কিনেছে ভারত ৷ মার্কিন আপেলের ক্রেতা হিসেবে ভারতের স্থান দ্বিতীয়৷ আর গত বছর শেষে ভারত-মার্কিন দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের অংকটা হল ১৪,২১০ কোটি ডলার।