নয়াদিল্লি: বেলাগাম সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৪ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সকাল পর্যন্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৬ লক্ষ ৯৭ হাজার ৪১৩। করেনায় দেশে মৃত্যু বেড়ে ১৯ হাজার ৬৯৩।

সংক্রমণের নিরিখে রাশিয়াকেও পিছনে ফেলে বিশ্বে সর্বাধিক করোনা আক্রান্তের তালিকায় এখন তিন নম্বরে উঠে এসেছে ভারত।
করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই ঘোরালো হচ্ছে ভারতে। করোনায় বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলির তালিকায় এবার আমেরিকা ও ব্রাজিলের পরই তিন নম্বরে চলে এসেছে ভারত। দেশে এপর্যন্ত ৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৪৩৩ জন করোনামুক্ত হয়েছেন। একইসঙ্গে এই মুহুর্তে দেশে করোনা অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ২ লক্ষ ৫৩ হাজার ২৮৭টি।

দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রেই করোনার সর্বোচ্চ সংক্রমণ। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী সোমবার সকাল পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ লক্ষ ৬ হাজার ৬১৯।

মহারাষ্ট্রে করোনায় মৃত বেড়ে ৮ হাজার ৮২২। সংক্রমণের নিরিখে মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে তামিলনাড়ু। দক্ষিণের এই রাজ্যে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১ লক্ষ ১১ হাজার ১৫১। তামিলনাড়ুতে করোনায় এখনও পর্যন্ত ১ হাজার ৫১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

রাজধানীতে করোনায় সংক্রমিতের সংখ্যা ১ লক্ষের কাছাছাকাছি পৌঁছেছে। সোমবার সকাল পর্যন্ত দিল্লিতে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৯৯ হাজার ৪৪৪।

এখনও পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে দিল্লিতে ৩ হাজার ৬৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। একইভাবে গুজরাত, রাজস্থান, অন্ধ্রপ্রদেশ, অসম, কর্নাটক, পশ্চিমবঙ্গ-সহ দেশের একাধিক রাজ্যে করোনার সংক্রমণ উদ্বেগ বাড়াচ্ছে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব