নয়াদিল্লি: দেশে ক্রমে ক্রমে কমছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। শেষ ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হলেন ১৫ হাজার ২২৩ জন। অন্যদিকে এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে, ১৫১ জনের।

নতুন আক্রান্ত ও মৃত্যুর জেরে দেশে মোট আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ল। দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ কোটি ৬ লক্ষ ১০ হাজার ৮৮৩ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ৫২ হজার ৮৬৯।

দেশে মোট আক্রান্তের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ কোটি ২ লক্ষ ৬৫ হাজার ৭০৬ জন। অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ১ লক্ষ ৯২ হাজার ৩০৮ জন। যা কিনা গত ২০৮ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন।

আরও খবর পড়ুন – BREAKING: ভারত থেকে ২০ লক্ষ ডোজের করোনা টিকা পৌঁছল ঢাকায়

অন্যদিকে ১৬ জানুয়ারি থেকে ভারতে টিকা দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে এবং এই প্রক্রিয়া এখনও অব্যহত। তবে ভারতে টিকা প্রাপ্ত মোট সংখ্যার মধ্যে মাত্র ০.০৮ শতাংশ মানুষের, অর্থাৎ মাত্র এক হাজার মানুষের শরীরে দেখা গিয়েছে ভ্যাকসিনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া। মাত্র ০.০০২ শতাংশ মানুষকে টিকা নেওয়ার পর আবার হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, সমস্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের এগিয়ে এসে করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ করা উচিত, ভ্যাকসিন সম্পর্কে নানান গুজব এড়িয়ে চলতে পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। নীতি আয়োগের সদস্য ভি কে পল আশ্বাস দিয়ে জানিয়েছেন, দেশে যে দুটি ভ্যাকসিন অনুমোদিত হয়েছে তা একেবারেই ঠিক আছে।

আরও খবর পড়ুন – শহিদ-স্মরণে ২ মিনিট নীরবতা পালন ৩০ জানুয়ারি, নির্দেশিকা কেন্দ্রের

দুটি ভ্যাকসিন একদিকে যেমন অনুমোদিত হয়েছে, তেমনই আরও চারটি ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ চলছে। কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, কোন সেশনে কোন ভ্যাকসিন দেওয়া হবে তা পুরোপুরি রাজ্য সরকারের উপর নির্ভরশীল। এখনও অবধি উত্তর প্রদেশ, রাজস্থানের মতো রাজ্য রয়েছে যেখানে দ্রুত গতিতে বাড়ানো হচ্ছে টিকাকরণের কাজ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।