নয়াদিল্লি: ভারতের দুটি বিমান গুলি করে নামানো হয়েছে বলে দাবি করছে পাকিস্তান। কিন্তু পাকিস্তানের এই দাবি উড়িয়ে দিয়ে ভারত জানিয়েছে কোনও বায়ুসেনা বিমান গুলি করে নামানো হয়নি। সংবাদসংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে খবর যে কোনও এয়ার ফোর্সের পাইলট নিখোঁজ নন। অর্থাৎ ভারতের দুই পাইলটকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে যে দাবি পাকিস্তান করেছে সেটাও অস্বীকার করেছে ভারত।

বুধবার সকালে ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে ঢুকে পড়ে দুটি পাক বিমান। এরপরই পাক সেনার মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর দাবি করেন, PAF দুটি ভারতীয় যুদ্ধবিমান ধ্বংস করেছে৷ একটি বিমান পাক অধিকৃত কাশ্মীরে গিয়ে পড়ে, অন্যদিকে ভারতের মধ্যেই পড়ে৷ এর মধ্যে একজন ভারতীয় পাইলটকে তারা গ্রেফতার করে বলেও দাবি৷ তবে এর সত্যাসত্য প্রমাণিত হয়নি৷ পরে পাক সংবাদমাধ্যম দাবি করে এক নয় দুই পাইলটকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: দেশে যুদ্ধের পরিস্থিতি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে বৈঠকে অজিত দোভাল

প্রসঙ্গত, গতকালই পাক ড্রোন ঢুকে পড়ে গুজরাতের কচ্ছে৷ তা নিমেষে গুলি করে নামায় ভারতীয় সেনা৷ ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারস্ট্রাইকের পরে এই পাক ড্রোনের প্রবেশ কী অন্য কিছুর ইঙ্গিত দিচ্ছে সেই প্রশ্ন মাথাচাড়া দিয়ে উঠলেও, ভারত যে সতর্ক তাই ফের একবার হাতেনাতে প্রমাণ দিয়ে পাক ড্রোন গুলি করে নামিয়ে দেয় তারা৷

বুধবারই, ভারতীয় আকাশসীমা লঙ্ঘনের চেষ্টা করে পাক বিমান এফ-১৬, এমনই খবর উঠে এসেছে৷

সীমান্তে যুদ্ধের আশঙ্কা তৈরি হওয়াতেই ভারতে বেশ কয়েকটি বিমানবন্দর থেকে বিমান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তানও। তারাও বেশ কয়েকটি বিমানবন্দরে উড়ান বন্ধ রাখছে বলে খবর।

আরও পড়ুন: যুদ্ধের ইঙ্গিত! পরমাণু অস্ত্র নিয়ে বৈঠকে ইসলামাবাদ

একইসঙ্গে ডোমেস্টিক ও আন্তর্জাতিক বিমান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানে। লাহোর, মুলতান, ফয়জলাবাদ, সিয়ালকোট ও পাকিস্তানের রাজধানী শহর ইসলামাবাদে বিমান পরিষেবা সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, ভারতেও অমৃতসর সহ বেশ কয়েকটি বিমাবন্দরে বিমান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে বিমান চলাচলও বন্ধ রাখা হয়েছে। যেসব বিমান আকাশে উড়ছিল সেগুলি হয় সংশ্লিষ্ট বিমানবন্দরে ফিরে যাচ্ছে অথবা অন্য কোনও রুটে আসার চেষ্টা করছে।