দুবাই: বার্মিংহ্যামে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া অ্যাশেজ টেস্ট দিয়ে শুরু হয়েছে আইসিসি টেস্ট বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ৷ আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে অ্যান্টিগা টেস্ট দিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে খাতা খুলেছে ভারত৷ ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে ২-০ টেস্ট সিরিজ জিতে স্বপ্নের শুরু করেছে কোহলি অ্যান্ড কোং৷ এই মুহূর্তে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ১২০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে বিরাটবাহিনী৷

টেস্টের বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ অভিযান শুরু করেছেন ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা ও নিউজিল্যান্ড৷ দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ ও পাকিস্তান এখনও টেস্ট বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে অভিযান শুরু করেনি৷ তবে সোমবার ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ জিতে ১২০ পয়েন্ট নিয়ে এক নম্বরে রয়েছে ভারত৷

সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দুই টেস্টে সিরিজ ২-০ জিতেছে ভারত৷ অ্যান্টিগায় প্রথম টেস্টে রেকর্ড ৩১৮ রানে জেতার পর জামাইকায় সিরিজের দ্বিতীয় তথা শেষ টেস্টেও ২৫৭ রানে জেতে বিরাটবাহিনী৷ ২০১৬ পর ২০১৯ এই তিনি বছরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে টানা দু’বার বিরাটের নেতৃত্বে টেস্ট জিতল ভারত৷ দুই টেস্টের সিরিজ ২-০ জেতায় ভারতের ঝুলিতে এখন ১২০ পয়েন্ট৷

আর অ্যাশেজে প্রথম তিন টেস্টের পর অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ড দুই দলই ৩২ পয়েন্ট পেয়েছে রয়েছে যথাক্রমে চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে৷ পাঁচ টেস্টের সিরিজে অস্ট্রেলিয়া বার্মিংহ্যামে প্রথম টেস্ট জিতলেও লন্ডনে দ্বিতীয় টেস্ট ড্র হয়৷ কিন্তু লিডসে তৃতীয় টেস্টে রুদ্ধশ্বাস জয় পেয়ে সিরিজে সমতা ফেরায় ইংল্যান্ড৷ অর্থাৎ সিরিজের প্রথম তিনটি টেস্টের মধ্যে দুই দলই একটি করে জিতেছে৷ আর একটি টেস্ট ড্র হওয়ায় অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড দু’দলেরই পয়েন্ট ৩২৷

তবে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দুই ম্যাচের সিরিজের দ্বিতীয় তথা শেষে টেস্ট ইনিংস ও ৬৫ রানে জিতে পয়েন্ট তালিকায় দু’ নম্বরে রয়েছে নিউজিল্যান্ড৷ দুই টেস্টের সিরিজে দুই দলই একটি করে জেতায় দুই দলই ৬০ পয়েন্ট করে পেয়েছে৷ কিন্তু দ্বিতীয় টেস্টে জয়ের ব্যবধান বেশি হওয়ায় শ্রীলঙ্কার থেকে উপরে রয়েছে নিউজিল্যান্ড৷ সমসংখ্যক পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকায় তিন নম্বরে রয়েছে শ্রীলঙ্কা৷ দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ ও পাকিস্তান এখনও ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে খেলতে নামেনি৷

এই ন’টি দল ২০২১ পর্যন্ত নিজেদের মধ্যে ৯টি দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলবে৷ এর মধ্যে ছ’টি ঘরের মাঠে সিরিজ এবং তিনটি সিরিজ হবে অ্যাওয়ে৷ আইসিসি-র নিয়মে প্রতিটি সিরিজের মোট পয়েন্ট হল ১২০৷ অর্থাৎ দুই টেস্টের সিরিজ হলে প্রতিটি টেস্ট জয়ের জন্য পয়েন্ট ৬০৷ টাই হলে ৩০ এবং ড্র হলে তার পয়েন্ট হবে ২০৷ কিন্তু তিন টেস্টের সিরিজ হলে ১২০ পয়েন্টকে তিন দিয়ে ভাগ করা হয়৷ অর্থাৎ প্রতিটি টেস্টের জন্য পয়েন্ট হবে ৪০৷ টাই হলে ২০ এবং ড্র হলে পয়েন্ট ভাগ হয় ১৩ করে৷ আর চার টেস্টের সিরিজে প্রতিটি টেস্ট জয়ের জন্য পয়েন্ট ৩০৷ টাই হলে ১৫ এবং ড্র হলে ১০৷ আর অ্যাশেজের মতো পাঁচ টেস্টের সিরিজে প্রতিটি টেস্ট জয়ের পয়েন্ট ২৪৷ টাই হলে ভাগ হবে ১২ পয়েন্ট করে এবং ড্র হলে দুই দলই ৮ পয়েন্ট করে পাবে৷