মেলবোর্ন: জনপ্রিয় ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে দলকে চ্যাম্পিয়ন করে ভারতের বিমান ধরলেন অ্যারন ফিঞ্চ। রবিবাসরীয় ডকল্যান্ডস স্টেডিয়ামে বিগ ব্যাশের উত্তেজক ফাইনালে স্থানীয় ফ্র্যাঞ্চাইজি দল মেলবোর্ন স্টারসকে ১৩ রানে হারিয়ে প্রথমবারের জন্য খেতাব ছিনিয়ে নেয় মেলবোর্ন রেনেগেডস। ঘরোয়া টুর্নামেন্টে দলকে চ্যাম্পিয়ন করে ফিঞ্চের ভাবনায় ঢুকে পড়ল ভারত সফর।

২৪ ফেব্রুয়ারি টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ দিয়েই ভারত সফরে অভিযান শুরু করছে অস্ট্রেলিয়া। দু’টি টি-টোয়েন্টির পাশাপাশি কোহলিদের বিরুদ্ধে ৫টি একদিনের ম্যাচ খেলবে অস্ট্রেলিয়া। তার আগে ঘরোয়া ক্রিকেট টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ঘটনা আত্মবিশ্বাস জোগাবে বলে মনে করেন সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে অজিদের দলনায়ক। ম্যাচ শেষের পর ফিঞ্চ জানান, ‘দলের হয়ে ভারত সফরে যাওয়ার আগে কিছু এই জয় টনিকের কাজ করবে।’ তবে ফাইনালে তাঁর রান আউটের ঘটনাকে ‘দুর্ভাগ্যজনক’ আখ্যা দেন তিনি।

উল্লেখ্য, দলের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দিনেও ব্যাটে রান পাননি ফিঞ্চ। মাত্র ১০ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। ক্যামেরন হোয়াইটের স্ট্রেট ড্রাইভ জ্যাকসন বার্ডের পায়ে লেগে উইকেট ভেঙে দেয় নন-স্ট্রাইকে দাঁড়িয়ে থাকা ফিঞ্চের উইকেট। সেসময় ক্রিজের বাইরেই ছিলেন তিনি। এরপর হতাশায় টানেলে ঢোকার সময় ব্যাট দিয়ে প্লাস্টিকের চেয়ার ভাঙেন তিনি।

এদিকে দলের জয়ে ফিঞ্চ খুশি হলেও খুশি হওয়ার অবকাশ নেই মেলবোর্ন স্টার অধিনায়ক গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের। ১৪৬ রান তাড়া করতে নেমে একসময় বিনা উইকেটে ৯৩ রানে দাঁড়িয়ে অ্যাডভান্টেজ ছিল স্টারস। কিন্তু ১৯ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ে ম্যাক্সওয়েলদের ব্যাটিং লাইন আপ। লক্ষ্যমাত্রা থেকে ১৩ রান দূরেই থমকে যেতে হয় তাদের। স্বভাবতই দলের পারফরম্যান্সে হতাশ হয়েই ফিঞ্চের সঙ্গে ভারতের বিমান ধরছেন এই মারকুটে ব্যাটসম্যান। একইসাথে ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজ খেলতে রওনা দিচ্ছেন মেলবোর্ন স্টারসে ম্যাক্সওয়েলের দুই সতীর্থ বেন ডাঙ্ক ও মার্কাস স্টোইনিস।

তবে রবিবাসরীয় ফাইনালে হারতে হলেও ভারতকে হারানোর ব্যাপারে জাতীয় দলের সতীর্থ ফিঞ্চের মতোই আত্মবিশ্বাসী ম্যাক্সওয়েল। অজি দলনায়ক ফিঞ্চ এদিন জানান, ‘হোম কন্ডিশনে ওয়ান ডে ক্রিকেটে এই মুহূর্তে সেরা কোহলির দলই। তাই পর্যাপ্ত গেম প্ল্যান ও আত্মবিশ্বাসই ভারত সফরে সাফল্য এনে দিতে পারে আমাদের।’