বেজিং: দু’দিন আগেই ভারতকে এনএসজি সদস্যপদ দেওয়ার বিষয়টা ‘ফেয়ারওয়েল গিফট’ হিসেবে কটাক্ষ করেছিল চিন। আর তার ঠিক দু’দিন পরেই চিনকে কড়া ভাষায় প্রত্যুত্তর দিল ভারত। বৃহস্পতিবার, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে স্পষ্ট উত্তর দেওয়া হয়েছে যে, ‘উপহার হিসেবে এনএসজি সদস্যপদ চাইছে না ভারত।’

এদিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ বলেন, ‘আমরা উপহার হিসেবে এই সদস্যপদ চাই না। আমরা সবসময় যেভাবে পরমাণু অস্ত্র প্রসারের বিরোধিতা করেছিল, সেই রেকর্ডের উপর ভিত্তি করেই আমরা এই সদস্যপদ পাওয়ার দাবি রাখি।’

ভারতের এনএসজি অন্তর্ভুক্তির পথে একমাত্র বাধা চিন। দিন দুয়েক আগেই চিনের বিদেশমন্ত্রী কটাক্ষ করে বলেন, এই বিষয়ে তারা ওয়াশিংটনকে কোনও প্রকার ‘বিদায়ী উপহার’ দিতে অপারগ। মার্কিন বিদেশ সহ-সচিব নিশা দেশাই বলেছিলেন, এটা স্পষ্ট যে, একজনই বাকিদের থেকে ভিন্ন মত পোষণ করেছে, আর সেটা চিন। উত্তরে, চিনা বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র হুয়া চিনউইং বলেন, ভারতের গোষ্ঠীতে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার বিষয়ে বেজিং নিজের অবস্থান আগেই স্পষ্ট করে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ৪৮-সদস্য এনএসজি-তে ভারতের অন্তর্ভুক্তির ইস্যুতে অন্য দেশগুলি সহমত পোষণ করলেও, একমাত্র চিনই এর পরিপন্থী। পাশাপাশি, জয়েশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি নিয়েও যাবতীয় অভিযোগ খণ্ডন করেন হুয়া। মাসুদকে নিষিদ্ধ করতে রাষ্ট্রপুঞ্জের দ্বারস্থ হয় ভারত। কিন্তু, মূলত চিনের আপত্তিতে নিষিদ্ধকরণ কার্যকর করতে পারেনি নিরাপত্তা পরিষদ।