বেজিং: নিয়ন্ত্রণ রেখা পার করে  অধিকৃত কাশ্মীরের মাটিতে ভারতীয় কমান্ডোরদের জঙ্গি নিধন অভিযানে চিন্তিত চিন৷ তাদের আশঙ্কা অবস্থান আরও কঠোর করবে ভারত৷ চিনা সংবাদমাধ্যম শেনজেন টিভির দাবি,  সীমান্ত সুরক্ষায় ভারত এবার রাফায়েল যুদ্ধবিমান বিশেষ কৌশলগত স্থানে রাখতে চলেছে৷ এই অঞ্চলটি চিন-পাকিস্তান সীমান্তের খুবই কাছে অবস্থিত৷ পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম রাফায়েল বিমান৷ সম্প্রতি এধরণের ৩৬টি যুদ্ধবিমান ফ্রান্স সরকারের কাছ থেকে কনেরা জন্য চুক্তি করেছে ভারত৷ এদিকে চিনের সরকার নিয়ন্ত্রিত সংবাদপত্র ‘GLOBAL TIMES’ জানাচ্ছে, রাফায়েল যুদ্ধবিমান পাকিস্তান-চিন সীমান্ত সংলগ্ন বিতর্কিত এলাকার কাছেই মোতায়েন করা হবে৷ এ বিষয়ে ভারতীয় বায়ুসেনার কাছে বিশেষ নির্দেশ পৌঁছে গিয়েছে৷ প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গবেষণাতে ভারতের সীমান্ত সুরক্ষার প্রস্তুতি খুবই গুরুত্ব পাচ্ছে৷  এমনই জানিয়েছে চিনা সংবাদপত্রটি৷  বারবার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (LAC) পারল করে ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢোকে চিনের সীমান্তরক্ষীরা৷ কখনও জম্মু-কাশ্মীরের লাদাখ সংলগ্ন সীমান্ত তো কখনও অরুণাচল প্রদেশ লাগোয়া সীমান্ত পার হয় চিনের সেনা৷ এ নিয়ে বেজিং-নয়াদিল্লি কূটনৈতিক সম্পর্ক উত্তপ্ত হয়ে ওঠে৷ পাকিস্তান-চিন সীমান্ত সংলগ্ন এলাকা মানেই কাশ্মীরের উত্তরাঞ্চল৷ যার কিছুটা অধিকৃত চিনের জমি হিসেবে পরিচিত৷ তিন রাষ্ট্রের কাছেই এটি অত্যন্ত কৌশলগত দুর্গম এলাকা৷ এই অঞ্চলের খুব কাছে রাফায়েলের মতো যুদ্ধবিমান ঘাঁটি তৈরিতে রীতিমতো শঙ্কিত চিন৷