গুয়াহাটি: নতুন বছরে নতুনভাবে শুরুর লক্ষ্যে ভারতীয় দল। সামনে শ্রীলঙ্কা। ২০১৯ শেষ ধাপে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সিরিজ জয়ের রেশ ধরে মালিঙ্গাদের বিরুদ্ধেও বাজিমাতের লক্ষ্যে ‘মেন ইন ব্লু’।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদের আঁচ গায়ে মেখেই ভারত বনাম শ্রীলঙ্কা টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হতে চলেছে গুয়াহাটির বারসাপাড়া ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। তবে মাঠের বাইরে পরিস্থিত সম্পূর্ণ নিরাপদ থাকায় আপাতত দলের অন্দরমহলেই ফোকাস ভারতীয় দলের। নজরে চোট সারিয়ে দলে কামব্যাক করা স্পিডস্টার জসপ্রীত বুমরাহ ও ওপেনার শিখর ধাওয়ান।

২০১৯ সিংহভাগ সময়টা চোটের কারণে বাইরে কাটানোর পর নতুন বছরে নতুনভাবে শুরুর লক্ষ্যে ধাওয়ানও। দিনকয়েক আগে জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তনের পর জাতীয় দলের ওপেনার জানিয়েছিলেন, ‘এটা আমার জন্য একটা ফ্রেশ স্টার্ট। প্রথমে আঙুলে চোট, তারপর গলায় আঘাত, শেষে হাঁটুর চোট। ভালো খবর যে নতুন বছরে সবকিছু নতুনভাবে শুরু হচ্ছে। আমি খুশি কেএলের পারফরম্যান্সে। সুযোগটা দারুণ কাজে লাগিয়েছে ও। সুতরাং, এবার আমার নিজেকে মেলে ধরার পালা।’

অন্যদিকে টুইটারে ২০১৯ সমস্ত ভালো কাজ, স্মৃতি এবং ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে ২০২০’র অফার ছিনিয়ে নেওয়ার কথা জানিয়েছেন বুমরাহ। চার মাস বাইশ গজ থেকে বাইরে থাকার পর দলের পেস বিভাগের সেরা অস্ত্রকে ধারালো ফর্মে দেখতে মুখিয়ে অনুরাগীরে। দ্বীপরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে বিশ্রামে রোহিত শর্মা। সুতরাং ডেপুটিকে টপকে ফের টি-২০ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রানসংগ্রাহক হওয়ার হাতছানি অধিনায়ক বিরাট কোহলির সামনে। সেজন্য প্রয়োজন আর মাত্র ৭ রান। রবিবাসরীয় গুয়াহাটিতে নজর থাকবে সেদিকেও।

অন্যদিকে লাসিথ মালিঙ্গা নেতৃত্বাধীন শ্রীলঙ্কা দলে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ক্রিকেটারের অভাব। তাই ভারত সফরে টি-২০ সিরিজের জন্য দলে ফেরানো হয়েছে অভিজ্ঞ অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজকে। তবে সবকিছুর মধ্যেও বারবারই যেন সিএএ’র প্রতিবাদে অসমের বিশৃঙ্খলার ছবি মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে বারংবার। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে প্রতিবাদের আঁতুড়ঘরে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ভারত অধিনায়ক যথেষ্ট খুশি হলেও ম্যাচ ঘিরে নিরাপত্তায় এতটুকু ফাঁক রাখতে অসম ক্রিকেট সংস্থা।

রবিবারের ম্যাচে পোস্টার ছাড়াই মাঠে প্রবেশ করতে হবে সমর্থকদের। প্রিয় তারকার উদ্দেশে কোনও বার্তা লেখা পোস্টার নিয়ে মাঠে প্রবেশ করতে পারবেন না বিরাট ও রোহিত ফ্যানেরা। শুধু তাই নয়, স্কেচ পেন, রং, তুলি, মার্কার ও পেন্সিলও নিষিদ্ধ। মাত্র তিনটি জিনিস নিয়ে মাঠে ঢুকতে পারবেন দর্শকরা। এগুলি হল মোবাইল ফোন, গাড়ির চাবি ও মানিব্যাগ৷ শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে একথা পরিষ্কার জানিয়ে দেন গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনার এমপি গুপ্তা।