অ্যান্টিগা: ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম ম্যাচ ৭৫ রানে লিড নিল ভারত৷ টিম ইন্ডিয়ার ২৯৭ রান তাড়া করতে গিয়ে ২২২ রানে অল-আউট হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ৷ শনিবার প্রথম দে়ড় ঘণ্টায় ক্যারিবিয়ান ইনিংসের শেষ দু’টি উইকেটের মধ্যে একটি মহম্মদ শামি ও অপরটি তুলে নেন রবীন্দ্র জাদেজা৷

দ্বিতীয় দিনের শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৮ উইকেট হারিয়ে ১৮৯ রান তুলেছিল। অর্থাৎ প্রথম ইনিংসের নিরিখে ভারতের থেকে এখনও ১০৮ রানে পিছিয়ে এদিন খেলা শুরু করে ক্যারিবিয়ানরা। এদিন আরও ৩৩ রান যোগ করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ৷ আগের দিনের অপরাজিত ব্যাটসম্যান জেসন হোল্ডার ৩৯ রানে আউট হন৷ অপর অপরাজিত ব্যাটসম্যান কামিন্স ০ রানেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন৷

স্যার ভিভ রিচার্ডস স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভারত শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে। রাহানের হাফ সেঞ্চুরিতে (৮১) ভর করে ৬ উইকেটে ২০৬ রান তুলে প্রথম দিনের খেলা শেষ করে তারা। দ্বিতীয় দিনে তার পর থেকে খেলতে নেমে টিম ইন্ডিয়া প্রথম ইনিংসে অলআউট হয়ে যায় ২৯৭ রানে। ঋষভ পন্ত গতদিনের ব্যক্তিগত ২০ রানের পর থেকে মাত্র ৪ রান যোগ করে আউট হয়ে বসেন। টেল-এন্ডারদের সঙ্গে নিয়ে রবীন্দ্র জাদেজা দলকে তিনশো রানের দোরগোড়ায় নিয়ে যান।

ইশান্তের সঙ্গে ৬০ রানের পার্টনারশিপ ছাড়াও শেষ উইকেটের জুটিতে জসপ্রীত বুমরাহকে সঙ্গে নিয়ে আরও ২৯ রান যোগ করেন জাদেজা। ইতিমধ্যে ব্যক্তিগত অর্ধশতরানের গন্ডি ছাড়িয়ে যান তিনি। শেষমেষ জাদেজা আউট হন ৫৮ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে।

রান তাড়া করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম আধঘন্টা নির্বিঘ্নে কাটালেও ক্যাম্পবেলকে ২৩ রানে শামি বোল্ড করার পর থেকেই নিয়মিত অন্তরে উইকেট হারাতে থাকে তারা। ক্রেগ ব্রাথওয়েট ১৪ রান করে ইশান্ত শর্মার বলে তাঁর হাতেই ফিরতি ক্যাচ দেন। শামার ব্রুকস ১১ রান করে জাদেজার বলে রাহানের হাতে ধরা পড়েন। ড্যারেন ব্র্যাভো ১৮ রান করে বুমরাহর বলে এলবিডব্লুিউ হন।

দ্বিতীয় দিনের শেষ দেড় ঘন্টা বলা হাতে ইশান্ত ছড়ি ঘোরান অ্যান্টিগায়। তিনি পরপর ফিরিয়ে দেন রোস্টন চেস, শাই হোপ, হেটমায়ার ও কেমার রোচকে। চেস ৪৮ রান করে লোকেশ রাহুলের হাতে ধরা দেন। হোপ ২৪ রান করে উইকেটকিপার পন্তের দস্তানায় ধরা পড়ে যান। ৩৫ রান করে হেটমায়ার কট অ্যান্ড বোল্ড আউট হন। খাতা খোলার আগেই রোচকে কোহলির হাতে ধরা দিতে বাধ্য করেন ইশান্ত।