কুয়েত সিটি: চুক্তি সাক্ষর হয়েছিল গত বছর অক্টোবরে৷ তা বাস্তবে রূপ দিতে লাগল চার মাস৷ ফেব্রুয়ারি মাস থেকে কুয়েতে যেতে ভারতীয়দের লাগছে না ভিসার অনুমোদন৷ তবে এই ছাড় সব ভারতীয়দের জন্য নয়৷ কূটনীতিক, সরকারি আধিকারিক ও যাদের স্পেশাল পাসপোর্ট আছে তারাই এই ছাড়ের আওতায় পড়বেন৷ একই নিয়ম কুয়েতিদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য৷

২০১৮ সালের ৩১ অক্টোবর কুয়েত ও ভারত সরকারের মধ্যে একটি চুক্তি সাক্ষরিত হয়৷ সেখানে দুই দেশই বিশেষ পদাধিকারী নাগরিকদের ভিসার অনুমোদনের ক্ষেত্রে ছাড় দেয়৷ ফলে দুই দেশের নাগরিক ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ভিসা ছাড়াই আন্তর্জাতিক টার্মিনাস থেকে প্রবেশ ও প্রস্থান করতে পারছে৷ ভিসা ছাড়া সর্বোচ্চ ৬০ দিন তারা দুই দেশে থাকতে পারবে৷ যেকোনও জায়গায় স্বাধীনভাবে ঘোরাফেরার ক্ষেত্রে এই নিয়ম বাধা হবে না৷

ছাড়ের আওতায় থাকা নাগরিকরা চাইলে এই মেয়াদ বাড়াতে পারেন৷ চুক্তিতে সেই বিধানও দেওয়া হয়েছে৷ বলা হয়েছে নির্দিষ্ট সময় শেষে নাগরিকরা চাইলে ভারত অথবা কুয়েতে থাকার মেয়াদ বাড়াতে পারবেন৷ তবে এর জন্য আইন মোতাবেক প্রয়োজনীয় অনুমোদন নিতে হবে৷

বিশ্বের এমন অনেক দেশ আছে যেখানে ভারতীয়রা ভিসা ছাড়াই ঘুরে আসতে পারেন বা পৌঁছনোর পর ইস্যু করা হয় ভিসা৷ সেই তালিকায় রয়েছে নেপাল, ভূটান, ইন্দোনেশিয়া, মলদ্বীপ, মরিশাস, ফিজি, হংকং, ম্যাকাও ইত্যাদি৷ পুরোপুরি না হলেও কুয়েত আংশিকভাবে সেই তালিকায় ঢুকে পড়েছে৷

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।