নয়াদিল্লি: বেশ কিছু জায়গায় হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে ভারত স্টেজ ২ ও স্টেজ ৩-এর মাঝামাঝি আছে বলে জানাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থেকে একথা জানানো হয়েছে। এদিনই এইমসের ডিরেক্টর জানান, ভারতের কোথাও কোথাও কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে।

সেই কথার রেশ ধরেই স্বাস্থ্য সচিব লাভ আগরওয়াল বলেন, যেখান থেকে বেশি সংখ্যক সংক্রমণের ঘটনা ঘটছে, সেসব জায়গায় বিশেষ নজর দিচ্ছে সরকার। তিনি আরও বলেন, ‘কমিউনিটি ট্রান্সমিশন যদি হয়, তাহলে আমরাই সবার আগে জানাব। এইমসের ডিরেক্টর একটি বিশেষ জায়গায় কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের কথা বলতে চেয়েছেন।’

স্টেজ ৩- তে যাতে যা যায়, তার জন্য সবরকম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এক সাক্ষাৎকারে AIIMS -এর প্রধান ড. রণদীপ গুলেরিয়া বলেন, দেশের কিছি কিছু অঞ্চলে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে। যদিও তিনি বলেন, কমিউনিটি ট্রান্সমিশন কিছু কিছু জায়গাতেই হয়ে থাকতে পারে। কিন্তু ভারত আপাতত স্টেজ ২ আর স্টেজ-৩ র মাঝামাঝি আছে।

ভারতের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু জায়গায় একধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে সংক্রমণ। কমিউনিটি সংক্রমণও হচ্ছে।’ যদিও এইমসের ডিরেক্টর স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন যে ভারত এখনও সম্পূর্ণভাবে স্টেজ-৩ তে যায়নি।

এর আগে কেন্দ্র জানিয়েছিল যে ভারতে লোকাল ট্রান্সমিশন হচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থেকে সচিব লাভ আগরওয়াল কিছুদিন আগেই বলেন, ‘এখনও পর্যন্ত আমরা কমিউনিটি শব্দটা ব্যবহার করছি না। কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে কিনা, তা এখনও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’