নয়াদিল্লি: ভারতের হাতে পর্যাপ্ত হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রয়েছে। দেশে করোনা মোকাবিলায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের কোনও অভাব হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ম্যালেরিয়ার ওষুধ এই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন করোনা মোকাবিলায় কাজে লাগিয়ে সাফল্য মিলছে।

ইতিমধ্যেই বিশ্বের একাধিক দেশ ভারতের কাছে এই ওষুধ চেয়ে আবেদন জানিয়েছে। আমেরিকার আবেদনে সাড়া দিয়ে ইতিমধ্যেই মার্কিন মুলুকে করোনা রুখতে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ পাঠিয়েছে ভারত।

পৃথিবীর মধ্যে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের সবচেয়ে বড় উৎপাদক দেশ ভারত। ম্যালেরিয়া রোধে ব্যবহৃত এই ওষুধ করোনা মোকাবিলাতেও দারুণ ভাবে কাজে লাগছে। বিশেষত করোনায় আক্রান্ত হয়ে যে রোগীর শ্বাসকষ্টজনিত তীব্র সমস্যা তৈরি হচ্ছে, তাঁকে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ দিলে তিনি চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন।

মারণ করোনার থাবায় তছনছ গোটা মার্কিন মুলুক। এখনও পর্যন্ত আমেরিকার ৪ লক্ষ ৩৫ হাজার ১৬০ জন নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আমেরিকায় মারণ এই ভাইরাস ১৪ হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। আগামী কয়েকদিনে করোনা ভাইরাসে লক্ষাধিক মৃত্যুর আশঙ্কা করছে মার্কিন প্রশাসন।

করোনা মোকাবিলায় ভারতের কাছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন চেয়ে আবেদন করেন ট্রাম্প। ভারতের চটজলদি জবাব না পেয়ে পরে একপ্রকার হুমকি দিয়ে তিনি জানান, ভারত হাইড্রক্সিক্লোরোকু না পাঠালে ফল ভুগতে হবে। যদিও আন্তর্জাতিক মহলের সঙ্গে তিক্ততা না বাড়িয়ে এরপরই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রফতানির সিদ্ধান্ত নেয় ভারত।

এদিকে, দেশের বিরোধী রাজনৈতিক দল বিশেষত কংগ্রেস হাইড্রক্সিক্লোরোকু আমেরিকায় পাঠানোয় সমালোচনা করেছেন মোদী সরকারের। টুইটে কংগ্রেসের তোপ, ‘দেশবাসীর স্বার্থ সুরক্ষিত না করেই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রফতানির সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের।’

যদিও স্বাস্থ্যমন্ত্রক সব আশঙ্কা উড়িয়ে স্পষ্ট জানিয়েছে, ভারতের হাতে পর্যাপ্ত হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রয়েছে। আশঙ্কার কোনও কারণ নেই। দেশে করোনার চিকিৎসায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের কোনও অভাব হবে না। বিশ্বে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তেই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন-সহ একাধিক ওষুধ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে কেন্দ্রীয় সরকার। মারণ করোনা ভাইরাসের হানায় কাঁপছে গোটা বিশ্ব।

এই পরিস্থিতিতে একাধিক দেশ করোনা-মুক্তিতে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন চেয়ে ভারতের স্মরণাপন্ন হয়েছে। এই অবস্থায় ভারতও নিজের জোগান রেখেই আমেরিকা, ব্রাজিল-সহ কয়েকটি বন্ধু দেশকে করোনা মোকাবিলায় বিশেষ এই ওষুধ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।