নয়াদিল্লি : কেন্দ্রের তরফ থেকে দেওয়া প্রশ্নের উত্তর দিতে তিন সপ্তাহ সময় পাবে ব্যান হওয়া চিনা অ্যাপ সংস্থাগুলি। ২৯শে জুন রাতারাতি ৫৯টি চিনা অ্যাপ বাতিল করে কেন্দ্র। তার পর থেকেই কেন্দ্রের পদক্ষেপ নিয়ে নিজেদের মধ্য আলোচনা শুরু করে সংস্থাগুলি।

কেন্দ্রের তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক এই সংস্থাগুলিকে তিন সপ্তাহের মধ্যে তাঁদের দেওয়া প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। কীভাবে এই সংস্থাগুলি কাজ করত, এই সংস্থাগুলির অর্থনৈতিক পরিকাঠামো কী, তাদের তথ্য রাখার প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চেয়ে প্রশ্ন পাঠিয়েছে কেন্দ্র। অবৈধ ও অননুমোদিত তথ্য রাখা হত এই সব সংস্থাগুলিতে, এমনই অভিযোগ কেন্দ্রের। সংস্থাগুলি সেই অভিযোগ খারিজ করার স্বপক্ষে কি যুক্তি দিচ্ছে, তা খতিয়ে দেখা হবে।

৫০-৭০টি রিপোর্ট এই সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে তৈরি করা হয়েছে বলে খবর।

এর আগে, চিনের নাম না করে ও সীমান্তে সংঘর্ষের উল্লেখ না করেই চিনা অ্যাপ বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র। যাতে বাইটডান্সের মতো কোম্পানিগুলি সমস্যায় পড়েছে। তবে উল্লেখ্য যে সব ফোনে ইতিমধ্যেই টিকটক ডাউনলোড করা হয়েছে, তা এখন সক্রিয়। সোমবারই টিকটক সহ ৫৯টি চিনা অ্যাপকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে কেন্দ্র সরকার।

তবে এই কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে সংস্থাগুলি। এই বিষয়ে মুখও খুলেছে চিনা সংস্থাগুলি। অ্যাপগুলি নিষিদ্ধ হওয়ার বিষয়ে এবার সরকারের সঙ্গে কথা বলতে চলেছে এই সংস্থা। কেন অ্যাপ নিষিদ্ধ করা হল, তার ব্যাখ্যা চাওয়া হবে সরকারের কাছে বলে জানানো হয়েছে। এদিকে, সংস্থাগুলির কথা বলতে চাওয়ার দাবিকে মান্যতা দিয়ে বিশেষ প্যানেল তৈরি করে কেন্দ্র। সংস্থাগুলির নিজেদের বক্তব্য শুনবে এই প্যানেল। পাশাপাশি ৭০টি প্রশ্নের একটি তালিকা তৈরি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেগুলির জবাব দিতে হবে সংস্থাকে। না দিতে পারলে ভারত থেকে একেবারে বিদায় জানানো হবে এই চিনের অ্যাপগুলিকে।

জানানো হয় ৪৮ ঘন্টার মধ্যে প্যানেলের কাছে নিজেদের বক্তব্য জমা দিতে হবে। এই প্যানেলে ছিলেন আয়কর দফতর, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক, আইন মন্ত্রক ও ইন্ডিয়ান কম্পিউটার এমার্জেন্সি রেসপন্স টিমের সদস্য ও আধিকারিকরা। এদিকে, নিষিদ্ধ হয়ে যাওয়া টিকটকের হাত ধরে নয়া ব্যবসা পেতে বসার সুযোগ খুঁজছিল চিনের বাইটডান্স কোম্পানি।

তবে সে আশায় আপাতত জল ঢেলে টিকটক সমেত ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করে কেন্দ্র। উল্লেখ্য চিনের বাইটডান্স কোম্পানির শাখা প্রতিষ্ঠান টিকটক। বাইটডান্সের ১০০ কোটির প্রজেক্ট এখন বিশ বাঁও জলে। ফলে বেশ চিন্তায় এই কোম্পানি কর্তৃপক্ষ।

গত বছর থেকেই ভারতে নয়া শাখা খোলার পরিকল্পনা চালাচ্ছে বাইটডান্স। প্রচুর বিনিয়োগও হয়ে গিয়েছে এই প্রজেক্টের ওপর বলে জানাচ্ছেন আধিকারিকরা। ভারতে টিকটকের তুমুল চাহিদা দেখার পরেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। জানা গিয়েছে ভারতের বাজার থেকেই টিকটক মোট আয়ের ৩০ শতাংশ পেত।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ